এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়ায় বিজেপি- কর্মী হত্যা-চাপ বাড়াচ্ছে বিজেপি,পাল্টা তোপ দাগলেন পার্থ চ্যাটার্জী

পুরুলিয়ায় বিজেপি- কর্মী হত্যা-চাপ বাড়াচ্ছে বিজেপি,পাল্টা তোপ দাগলেন পার্থ চ্যাটার্জী

রাজ্যে একের পর এক বিজেপি কর্মীর রহস্যমৃত্যুতে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি।যা নিয়ে রাজ্যের শাসকদলকে বিপাকে ফেলতে চাইছে বিজেপি।শনিবার বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর ট্যুইটে এই এইরকমই ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।তিনি তাঁর ট্যুইটে লিখেছেন,”মমতার সরকার রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সম্পূর্নরুপে ব্যার্থ।”শুধু দলের সর্বভারতীয় সভাপতিই নন,এ নিয়ে তৃনমূল সরকারের প্রতি তীব্র কটাক্ষের সুর শোনা গেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরের গলায়ও।তাঁর মতে,”বাংলায় হত্যার রাজনীতির আমদানি হয়েছে।” সূত্রে খবর,পুরুলিয়ায় পরপর এইরুপ মৃত্যুর ঘটনায় হতবাক নবান্নও।সিআইডিকে তদন্তের ভার দিয়ে ঘটনার প্রকৃত অনুসন্ধান করতে বলা হয়েছে।এমনকী এই জেলার পুলিশ সুপারকেও অপসারন করা হয়েছে।

কিন্তু রাজ্যের তদন্তাধীন সংস্থার প্রতি যে তাদের বিন্দুমাত্র ভরসা নেই,তা  বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের মন্তব্য থেকেই স্পষ্ট।এই মৃত্যুর তদন্ত সিআইডি নয়,সিবিআইয়ের হৃতে দেওয়া হোক বলে দাবি তোলেন তিনি।

এনিয়ে পাল্টা আসরে নামে তৃনমূলও।দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন,”এই রাজ্যকে গুজরাত বা উত্তরপ্রদেশ কিংবা রাজস্থান ভাবলে ভুল করবে বিজেপি।সেখানে কি ধরনের নারকীয় ঘটনা ঘটে,সেটাও আমরা জানি।”সাথে সাথে তাঁর আরও সংযোজন,”যে কোনো মৃত্যুই বেদনার।আমরা চাই সঠিক পথে তদন্ত হোক।আসলে বিজেপি নেতাদের মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে।তাই ওনারাই রোজ রোজ মারব-কাটব-জ্বালিয়ে দেব এসব বলে হুমকি দিচ্ছে।মমতার বাংলায় এই সব উস্কানি দিয়ে কোনো লাভ হবে না।”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এদিকে বলরামপুরে এক রহস্যমৃত্যুর ঘটনায় তৃনমূল সরকারকে চেপে ধরেছে সিপিএম ও কংগ্রেসও। এ নিয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর বাবু বলেন,”বিজেপির সঙ্গে আমাদের মতাদর্শগত পার্থক্য থাকলেও এটি একটি রাজনৈতিক খুন,যা তৃনমূলের যুব সভাপতির হুমকির পড়ই ঘটেছে।”বিজেপির কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ও পরোক্ষভাবে দায়ী করেছেন তৃনমূলের যুবরাজকে।অপরদিকে সিপিএমের পক্ষ থেকে সুজন চক্রবর্তীর মন্তব্য,”কোন দলের কর্মী সেটা বিবেচ্য বিষয় নয়।সবথেকে বড় কথা দুজন যুবক খুন হয়েছেন।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, এবারের পঞ্চায়েতে তৃনমূলকে পেছনে ফেলে জঙ্গলমহলের জেলাগুলিতে ভালো ফল করেছে বিজেপি।এমনকীবলরামপুরের তৃনমূলের জেলা পরিষদের সভাধিপতিকেও হারতে হয়েছে বিজেপির কাছে।যা শাষকদলের চিন্তার ভাজকে আরও প্রকট করছে।আর এইসব কারনে নিজেদের কর্মীদের মৃত্যুতে তৃলকে দায়ী করে নিজেদের রাজনৈতিক শক্তি বাড়াতে তৎপর গেরুয়া শিবির।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!