এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়াতে দলবদলের ‘ম্যাজিক’! একটি আসন না জিতেও বোর্ড গঠন করছে শাসকদল

পুরুলিয়াতে দলবদলের ‘ম্যাজিক’! একটি আসন না জিতেও বোর্ড গঠন করছে শাসকদল

খাজুরা গ্রাম পঞ্চায়েতে তৃণমূল একটি আসনে না জিতলেও বোর্ড গঠন করার ব্যাপারে চূড়ান্ত আশাবাদী। যেভাবে বিজেপি নেতারা দল বেঁধে তাদের দলে যোগ দিচ্ছে,তাতে তাঁদের আত্মবিশ্বাস দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। গত দুদিনে রঘুনাথপুর-১ পঞ্চায়েত সমিতির একজন বিজেপি সদস্য এবং খাজুরা গ্রাম পঞ্চায়েতে বিজেপির জয়ী দুজন সদস্য তৃণমূলে যোগ দিলেন। এভাবে দলবদলের হিড়িক দেখে রীতিমতো অস্বস্তিতে গেরুয়াশিবির। জল্পনা তুঙ্গে উঠছে এলাকায়।

‘মানুষের উন্নয়ন করার শপথ নিয়ে তৃণমূলে যোগদান করলাম।’-এমনটাই বক্তব্য ঘাসফুল শিবিরে যোগ দেওয়া খাজুরা গ্রাম পঞ্চায়েতের বিজেপি নেতা বিজয় বাউরি,বিনয় বাউরি,ষষ্ঠীওদ রজক,মানিক বাউরিদের। এঁদের হাতে জোড়া ফুলের পতাকা তুলে দিলেন বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরি, জেলা তৃণমূল কংগ্রেস কার্যকরী সভাপতি প্রণব দেওঘরিয়া, ছাত্র যুব নেতা আমজাদ খান ও সাদ্দাম আনসারি। ‘মানুষ বুঝতে পেরেছে প্রকৃত উন্নয়ন করতে পারে তৃণমূলই। তাই প্রতিদিন বিজেপি সহ অন্যান্য দল থেকে প্রচুর মানুষ তৃণমূলে নাম লেখাচ্ছেন।’- এমনটাই দাবী তৃণমূল বিধায়কের। অন্যদিকে,একইভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নকে সবুজ সংকেত দেখিয়ে তৃণমূলের টিকিট কাটতে দেখা গেল পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য সনাতন মুখোপাধ্যায় ও খাজুরার ১০ নম্বর সংসদের চিনপিনা গ্রামের বিজেপির জয়ী সদস্যা চঞ্চলা রজক ও ২ নম্বর সংসদের সদস্য কামাখ্যা বাউরিদের।

প্রসঙ্গত,২০১৩ সালে পঞ্চায়েত নির্বাচনে খাজুরা গ্রাম পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করেছিল সিপিএম। সেসময়ও পঞ্চায়েতে সিপিএমের জয়ী একদল সদস্য তৃণমূল যোগদান করার জেরে বোর্ড গঠন করেছিল তৃণমূল। এবারও সেই নজিরের দেখা মিলল। দলবদলের জেরে পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনের প্রতিযোগীতায় এগিয়ে রয়েছে শাসকদল। তবে গত ২৭ আগষ্ট খাজুরা গ্রাম পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে এলাকা অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। বোমাবাজি,গোলাগুলিরও অভিযোগ ওঠে। এর জেরে পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া রদ করে দেওয়া হয়। বোর্ড গঠনের বিজ্ঞপ্তি পরে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়। তবে যেভাবে বিজেপির জয়ী সদস্যরা শাসকদলে ভীড়ছেন তাতে এলাকায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এ প্রসঙ্গে বিজেপির জেলা যুব মোর্চা সভাপতি রাজেশ চিন্না ও জেলা সম্পাদক বাণেশ্বর মুখোপাধ্যায় জানান,তিনি এ বিষয়টি শুনেছেন। তৃণমূলের লোকজন সন্ত্রাস ছড়িয়ে,প্রলোভন দেখিয়ে জোর করে বিরোধীদের নিজেদের দলে টানছে,এটা জানতে কারোর আর বাকি নেই।  তবে তৃণমূল এর যোগ্য জবাব ২০১৯ এর লোকসভা ভোটেই পাবে বলে হুঁসিয়ারী মন্তব্যে জানান তিনি।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!