এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > পুরসভা ভোট নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে ২০২১ নিয়ে মমতাকে বড়সড় বার্তা দিলেন মুকুল রায়

পুরসভা ভোট নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে ২০২১ নিয়ে মমতাকে বড়সড় বার্তা দিলেন মুকুল রায়

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য জুড়ে রাজনৈতিক হানাহানির ঘটনা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। নৃশংসতার বিচারে একে অপরকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে। উল্লেখ্য, 2019 এর লোকসভা ভোট পরবর্তী সময় থেকে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে ক্রমাগত বেড়েছে খুনোখুনির রাজনীতি। রাজনৈতিক হানাহানি কম তো হচ্ছেই না, বরং দিন দিন বেড়েই চলেছে। একের পর এক প্রাণ বলি হচ্ছে। এই রাজনৈতিক হানাহানি ঘিরে রাজ্য বিজেপির তরফ থেকে মুকুল রায় শাসকদলের বিরুদ্ধে এবার তোপ দাগলেন।

এদিন মুকুল রায় উত্তর দিনাজপুরের সাংগঠনিক সভায় যাওয়ার আগেই তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন। মুকুল রায় এদিন মালদা সহ গোটা পশ্চিমবঙ্গের আইন প্রণালী নিয়ে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করলেন। তিনি বাংলার গণতন্ত্র নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন।

পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময়ের রাজনৈতিক হানাহানি প্রসঙ্গ তুলে এদিন মুকুল রায় বলেছেন, ‘বাংলায় মৃত্যুর সংখ্যা 89 এবং লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে মৃত্যুর সংখ্যা 35। এখন সারা ভারতবর্ষের মানুষের কাছে একটাই প্রশ্ন বাংলায় গণতন্ত্র থাকবে কি থাকবে না।’ এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে অগণতান্ত্রিক সরকারের বিরুদ্ধে লড়ার জন্য ‘গান্ধী সংকল্প যাত্রা’র আয়োজন করা হয়েছে বলে জানান এদিন মুকুল রায়।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি ক্ষোভ উগরে দিয়ে এদিন মুকুল রায় বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী পাহাড়ে থাকুন আর সমতলে থাকুন বাংলা জনাদেশ পরিষ্কার 2021 মমতার সরকার উৎখাত হবে।’ এদিন পুরসভা ভোট হবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে রাজ্য বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেন, ‘মমতা ব্যানার্জি অগণতান্ত্রিক। তিনি গণতন্ত্র মানেন না। তাই ভোট হওয়ার সম্ভাবনা নেই। তবে ভোট হলে 128 টি পুরসভা ও দশটি কর্পোরেশন এর মধ্যেই অধিকাংশটাই বিজেপি জিতবে।’

রাজ্যপালের জেলা সফর নিয়ে একসময় বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিল রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে। এদিন সে প্রসঙ্গেও মুকুল রায় বক্তব্য রেখেছেন। তিনি বলেন, ‘রাজ্যপাল সাংবিধানিক প্রধান। তিনি জেলায় যাবেন আধিকারিকদের সাথে বৈঠক করবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু যেভাবে তাঁর বৈঠকে যাচ্ছেন না প্রশাসনের আধিকারিকরা, এটাই সংবিধানের পক্ষে বড় বিপদ।’

এদিন বিজেপি নেতা মুকুল রায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সম্পর্কে ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি কাশ্মীর থেকে 370 ধারা বিলোপ এবং সার্জিকাল স্ট্রাইক প্রসঙ্গে বলেন, এখনকার ভারত হচ্ছে নরেন্দ্র মোদির ভারত। সেদিকে কেউ সাহস করে চোখ তুলে তাকাতে পারবেনা।

মুকুল রায়ের বক্তব্য প্রসঙ্গে এখনো পর্যন্ত তৃণমূল নেত্রীর তরফ থেকে কোনরকম বিবৃতি জারি করা হয়নি। সামনেই পশ্চিমবঙ্গে একের পর এক ভোট। ভোটের জমি দখল করতে এখন প্রতিটি রাজনৈতিক দল ব্যস্ত। ভোটের কথা মাথায় রেখে নিজেদের জমি পোক্ত করতে শাসক বিরোধী বিতর্ক এখন মাথাচাড়া দেবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। তবে আগামী দিনের ভোটের কথা মাথায় রেখে আপাতত পশ্চিমবঙ্গের দিকে নজর রেখেছে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!