এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > পুলওয়ামাতে ভয়াবহ জঙ্গী হামলার সময় কি করছিলেন মোদী, ভয়ানক অভিযোগ কংগ্রেসের

পুলওয়ামাতে ভয়াবহ জঙ্গী হামলার সময় কি করছিলেন মোদী, ভয়ানক অভিযোগ কংগ্রেসের

তৃণমূলের পাশাপাশি এবার কংগ্রেসও পুলওয়ামা ইস্যুতে মোদীবিরোধী সুর চড়া করল। পুলওয়ামাতে ভয়াবহ জঙ্গী হামলার সময় প্রধানমন্ত্রীর কর্মসূচি কেই মোদীর বিরুদ্ধে অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করল রাহুল গান্ধীর দল। ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় যখন জঙ্গী হামলার শিকার হয়ে ৪৯ জন ভারতীয় জওয়ান শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করছিলেন সেসময় উত্তরাখণ্ডের জিম করবেট ন্যাশনাল পার্কে নির্বাচনী প্রচারের শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন মোদী,এমনটাই অভিযোগ কংগ্রেসের।

শুধু তাই নয়,আরো এক ধাপ এগিয়ে কংগ্রেস অভিযোগ করেছে,১৪ ফেব্রুয়ারি দুপুর ৩ টে ১০ মিনিট নাগাদ পুলওয়ামা জঙ্গী হামলার কয়েক মিনিটের মধ্যে খবর পৌছে যায় প্রধানমন্ত্রীর কাছে। এরপরই সাড়ে ৬টা পর্যন্ত ওই পার্কে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। বোটে করে পার্ক ঘুরেছেন,সেখানে থেকে দলীয় প্রচারে শ্যুটিংও করেছেন। সাম্প্রতিক কালে দেশে হওয়া এতো বড় জঙ্গী হামলার খবর শুনে কীভাবে মোদী এতোক্ষণ কীভাবে পার্কে বিহার করে বেড়ালেন?

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

নির্বাচনী প্রচার সারলেন? এই প্রশ্ন তুলে দেশের প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকাকে কটাক্ষ করেছে কংগ্রেস। উল্লেখ্য,সেই পার্কে নির্বাচনী প্রচার সেরে রামনগর গেস্টহাউসেও কিছুক্ষণ সময় কাটিয়েছেন মোদী। তারপর সেখান থেকে ধনগড়ি পৌছান৷ এরপর দিল্লি বিমানবন্দরে শহিদদের মৃতদেহকে শ্রদ্ধা জানাতেও ঘন্টাখানেক লেট করেন মোদী,এমনটাই অভিযোগ কংগ্রেসের। দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়ে কীভাবে এই দায়িত্বহীনতার কাজটি করলেন মোদী? লোকসভা ভোটের মুখে সেই প্রশ্ন তুলেই নতুন বিতর্ক উস্কে দিল কংগ্রেস।

এখানেই থামে নি কংগ্রেস। জিম করবেট ন্যাশনাল পার্কে নরেন্দ্র মোদীর ভ্রমন এবং শুটিংয়ের ছবি টুইটারে প্রকাশ করে মোদী সরকারকে ‘ফোটশ্যুট সরকার’ এবং ‘প্রাইম টাইম মিনিস্টার’ বলে চিরাচরিত ভঙ্গিতে কটাক্ষও করেছেন রাহুল গান্ধী।

তবে বিজেপিশিবির থেকে সঙ্গে সঙ্গে পাল্টা জবাবও পেয়ে গেছেন জাতীয় কংগ্রেস সুপ্রিমো। বিজেপীর জাতীয় স্পোকপাশন মিনাক্ষী লেখী পাল্টা টুইট করে জানান, এটা পুরোটাই প্রোপাগান্ডা। পুলওয়ামা ঘটনার প্রতি মিনিটের আপডেট রাখছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এর সঙ্গেই ট্যুইটে একটি পুরানো পেপার কাটিংও পোষ্ট করেন লেখী। যেখানে ২৬/১১ মুম্বাই হামলাী সময়ে রাহুল গান্ধী পার্টি করছেন সেরকমই একটা খবর রয়েছে।

প্রসঙ্গত,২০০৮ সালের ২৬ নভেম্বর মুম্বাইয়ের তাজ হোটেল সহ বেশ কয়েকটি জায়গায় জঙ্গী হামলায় প্রাণ হারান প্রায় ২০০ জন সাধারণ মানুষ সহ পুলিশের সামরিক বাহিনীর অফিসার। সেসময় দেশের ক্ষমতায় ছিল ইউপিএ সরকার। প্রধানমন্ত্রী ছিলেন মনমোহন সিং।

হামলার পর বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়ে যে,মুম্বাই হামলার পর পরই পার্টিতে মত্ত ছিলেন রাহুল গান্ধী। সেসময়ও এই বিষয়টি নিয়ে বিরোধীশিবিরে থাকা বিজেপি কংগ্রেস সহ রাহুল গান্ধীকে বিঁধতে ছাড়েনি। আবারও প্রয়োজনে কংগ্রেসকে আক্রমণ করতে ঝুলি থেকে সেই পুরানো অস্ত্রই বার করতে হল বিজেপিকে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!