এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > অবশেষে পিএসি চেয়ারম্যান গেল ‘বিরোধীদের’ হাতে, বিধানসভায় খুশির পরিবেশ

অবশেষে পিএসি চেয়ারম্যান গেল ‘বিরোধীদের’ হাতে, বিধানসভায় খুশির পরিবেশ

প্রায় দেড় বছর পর বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকা সর্বদলীয় বৈঠকে একসিথে উপস্থিত হতে দেখা গেল শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস ও বিরোধী দল কংগ্রেস ও বামফ্রন্টকে।জানা গেছে, বিধানসভার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান ঠিক করা নিয়ে এদিন বৈঠক থাকলে বিরোধী দল কংগ্রেসের তরফে এই পদের জন্য সুখবিলাস বর্মার নাম প্রস্তাব করা হলে কোনো বিরোধীতা না করে সরকারপক্ষ তা মেনে নেয়। তবে বাদবাকি 42 টি কমিটির মধ্যে সবগুলি শাসকদলের হাতেই রাখা হয়েছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

এরমধ্যে লোকাল ফান্ড কমিটির চেয়ারম্যান হয়েছেন তৃনমৃল বিধায়ক জ্যোতির্ময় কর, পাবলিক আন্ডারটেকিংয়ের দ্বায়িত্ব দেওয়া হয়েছে পরেশ দত্তকে এবং এস্টিমেট কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে কংগ্রেসত্যাগী বর্তমানে তৃনমূল বিধায়ক শঙ্কর সিংকে। এতদিন পিএসসির চেয়ারম্যান শাসকদল থেকে হওয়ার কথা শুনে অধ্যক্ষের ডাকা সমস্ত বৈঠক বা অধিবেশন বয়কট করেছে বাম ও কংগ্রেস।

এমনকী তাঁদের তরফে বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবও জমা দেওয়া হয়। স্বভাবতই পিএসসির চেয়ারম্যান বিরোধী দল হিসাবে কংগ্রেস পাওয়ায় বিধানসভায় এদিন সেই অধ্যক্ষের প্রশংসায় এক সুর শোনা গেল শাসক ও বিরোধী দলের গলায়। তবে বিজেপি এতে অংশ না নেওয়ায় সেই ঐক্যৈর সুরে কিছুটা হলেও ছেদ পড়েছে। জানা গেছে, এদিন সর্বদলীয় বৈঠকে বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান ও বাম দলের পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী অংশ নিলেও পরে শারিরীক অসুস্থতার জন্য অধ্যক্ষের কাছে আগাম অনুমতি নিয়ে আধিবেশনের ধন্যবাদ জ্ঞাপন পর্বে থাকতে পারেননি আব্দুল মান্নান।

দলের ডেপুটি লিডার নেপাল মাহাতকে তিনি তার দ্বায়িত্ব দিয়ে যান। এদিন বিধানসভায় সেই ধন্যবাদজ্ঞাপন পর্বেই অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন কংগ্রেসের নেপাল মাহাত,বামেদের সুজন চক্রবর্তী, বিশ্বনাথ চৌধুরীরা। অন্যদিকে শাসকদলের তরফে পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও মুখ্যসচেতক নির্মল ঘোষও সুষ্টভাবে বিধানসভা চালানোর জন্য অধ্যক্ষকে ধন্যবাদ জানান। এমনকী মোর্চার তরফ থেকে অধ্যক্ষকে ধন্যবাদ জানানোতে অংশ নেন এক বিধায়ক। তবে এদিন বিজেপির তরফ থেকে কোনো বিধায়ক না আসায় কিছুটা হলেও তাল কেটেছে।তবে বিরোধী শাসকের এই ঐক্য দেখে অনেকেই বলছেন, অনেক দিন পর সদনে পারস্পরিক তিক্ততার পরিবেশ কেটে দিয়ে মধুরেন সমাপয়েৎ হল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!