এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > CAB নিয়ে উত্তাল বাংলা, শান্তি বজায় রাখার বার্তা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির

CAB নিয়ে উত্তাল বাংলা, শান্তি বজায় রাখার বার্তা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির



অনেক তর্ক-বিতর্কের পরে অবশেষে লোকসভার পরে রাজ্যসভাতেও পাশ হয়ে গেছে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বা সিএবি। এমনকি, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ এই বিলে সই করে দেওয়ার পর তা আইনে পরিণত হয়েছে। কিন্তু, এই বিল সংসদের দুই কক্ষেই পাশ হয়ে যাওয়ার পর থেকেই আসাম-ত্রিপুরা সহ উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলি থেকে অশান্তির খবর সামনে আসছিল। আর এবার এই অশান্তির ঢেউ আছড়ে পড়ল বাংলার বুকেও।

গতকাল থেকেই বেলডাঙা, উলুবেড়িয়া, কলকাতার পার্ক সার্কাস সহ বিভিন্ন জায়গা থেকে অশান্তির খবর সামনে আসতে থাকে। পরিস্থিতি রীতিমত অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে! ট্রেন লাইনে অবরোধের পাশাপাশি ট্রেনে পাথর ছোঁড়া, ট্রেন লাইনে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেও জানা গেছে। এর পাশাপাশিই এক্সপ্রেস ও লোকাল ট্রেনের উপর পাথর ছোঁড়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনায় ট্রেনের ড্রাইভার সহ যাত্রীরা জখম হয়েছেন বলেও জানা গেছে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অবরোধের নামে স্টেশনমাস্টারের ঘর জ্বালিয়ে দেওয়া, টিকিট কাউন্টারে ভাঙচুরের মত ঘটনাও ঘটেছে। ফলে, দীর্ঘ সময় বিভিন্ন রুটে ট্রেন চলাচল কার্যত স্তব্ধ হয়ে পরে। চূড়ান্ত হয়রানির শিকার হন নিত্যযাত্রী থেকে সাধারণ মানুষ। পুলিশ-প্রশাসনের চেষ্টায় রাতের দিকে কিছুটা স্বাভাবিক পরিস্থিতি হলেও, সামগ্রিক ভাবে এখনও অবরোধের জায়গাগুলি থমথম করছে। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়ে পরে যে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তড়িঘড়ি দীঘা থেকে ফিরে নবান্নে এক উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে বসেন।

বৈঠকের শেষে তিনি জানিয়ে দেন, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরোধিতায় আন্দোলনের পাশে তিনি আছেন। তবে কেউ যেন আইন-শৃঙ্খলা নিজের হাতে তুলে না নেয়। এই প্রসঙ্গে রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী তথা কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, যারা এই ধরনের রাস্তা আটকাচ্ছে, তারা বিজেপির হাত শক্ত করছে। বাংলা সেকুলার জায়গা, এখানে মস্তানি করা ঠিক হয়নি। দম থাকে তো অমিত শাহ বাড়ির সামনে গিয়ে করুন। এখন দেখার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বের এই আবেদনের পরে – এই ধরনের বিক্ষোভ কিছুটা স্তিমিত হয় কিনা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!