এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > ঠিক করে ঘুমিয়েই ওজন কমানো যায়! অবিশ্বাস্য হলেও সত্যিটা জেনে নিন

ঠিক করে ঘুমিয়েই ওজন কমানো যায়! অবিশ্বাস্য হলেও সত্যিটা জেনে নিন

আজকালকার দিনে বেশিরভাগ মানুষেরই সমস্যা হঠাৎ ওজন বেড়ে যাওয়া। এর প্রধান কারণ হচ্ছে, অনিয়মিত জীবনযাপন বা বাইরের খাবার খাওয়ার প্রবণতা। কিন্তু সবথেকে বড় কথা একবার মোটা হতে শুরু করলে, কিছুতেই তা আর নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছে না। এদিকে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়মিত শরীরচর্চাও করে ওঠা সম্ভবপর হচ্ছে না সাংসারিক দৈনন্দিন কাজের চাপে।

এই অবস্থায় নতুন একটি গবেষণার ফল সামনে এল, যা আপনাকে চমকিত করবেই। যে কাজটি করতে আপনি সবথেকে ভালোবাসেন, সেই ঘুম ভালো করে দিলেই – এবার থেকে কমতে পারে আপনার ওজন! অবিশ্বাস্য হলেও এটাই সত্যি বলে দাবি করছে বৈজ্ঞানিকদের গবেষণা। সম্প্রতি, ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অফ ওবেসিটিতে প্রকাশিত একটি লেখা থেকে জানা গেছে এই তথ্য।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

ওই লেখা থেকে জানা যাচ্ছে, ভার্জিলি ইউনিভার্সিটির হিউম্যান নিউট্রিশন ইউনিট-এর পক্ষ থেকে মোট ১,৯৮৬ জন ব্যক্তির মধ্যে প্রায় এক বছর ধরে একটি গবেষণা চালানো হয়। সেখানে শরীরের পরিবর্তন ও চর্বির পরিবর্তন নিয়ে বিশেষ করে নজর দেওয়া হয়। গবেষণা চলার সময় – কম ক্যালরিযুক্ত খাদ্য, তাদের নিত্যদিনের কার্যকলাপ এবং আচরণ বিধি থেরাপিও করা হয়।

আর সেই গবেষণার শেষেই দেখা গেছে, যাঁরা নিয়মিত এবং একটি নির্দিষ্ট পরিমান সময় ঘুমোন তাঁদের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা খুবই সহজ। যাঁরা বিশেষ করে একেক দিন একেক সময়ে ঘুমোন এবং ঘুমোনোর মোট সময়ও যাঁদের প্রতিদিন সমান নয়, তাঁদের একবার স্থূলতা শরীরে এলে আর তা দূর করা সহজ হয় না। বিশেষ করে যাঁরা দিনের বেলা অনিয়মিতভাবে যখন তখন ঘুমোন বা রাত্রে বেলায় পড়তে পড়তে ঘুমোন তাঁদের ক্ষেত্রে সমস্যা আরও বেশি। তাই আর কি? এবার থেকে রাত্রিবেলায় সঠিক সময়ে সঠিক পরিমান ঘুমোন – আর নিজের ওজন বা স্থূলতা নিয়ন্ত্রণে রাখুন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!