এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > যুব তৃণমূল না করায় মার খেলেন দুই তৃণমূল কর্মী, তীব্র অশান্তির আগুন শাসকদলের সংসারে

যুব তৃণমূল না করায় মার খেলেন দুই তৃণমূল কর্মী, তীব্র অশান্তির আগুন শাসকদলের সংসারে

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের বাংলা সংস্করণে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, যুব তৃণমূল না করায় মার খেলেন দুই তৃণমূল কর্মী, যার ফলে তীব্র অশান্তির আগুন জ্বলছে শাসকদলের সংসারে। আজ সকালে বাসন্তীর নির্দেশখালিতে যুব তৃণমূল কংগ্রেস করতে অস্বীকার করায় সাদ্দাম হোসেন পিয়াদা ও সালাম হোসেন পিয়াদা নামে দুই ভাইকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। ওই খবরে প্রকাশিত, স্থানীয় তৃণমূল যুব কংগ্রেস নেতা ইলিয়াস লস্কর ও তাঁর অনুগামীরা ওই দুই ভাইকে (দুজনেই তৃণমূল কর্মী) চাপ দিচ্ছিল যুব তৃণমূল করার জন্য, আর তাই নিয়েই তীব্র উত্তেজনা ছড়ায়, দুই ভাইকে গুরুতর জখম অবস্থায় ভর্তি করতে হয় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে।

ওই খবরে আরো প্রকাশিত, তৃণমূল যুব কংগ্রেস নেতা ইলিয়াস লস্করের ভয়ে দীর্ঘদিন ধরেই সালাম-সাদ্দামের পরিবার তটস্থ। শুধু তাঁরাই নন, অভিযোগ ইলিয়াস লস্করের ভয়ে বাসন্তীতে তৃণমূলেরই একাংশ ঘরছাড়া। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক বোমাবাজি হয়েছে বলে খবরে প্রকাশ। এলাকায় শান্তি ফেরাতে মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী, এমনকি বসানো হয়েছে পুলিশ পিকেটও। যদিও ইলিয়াস লস্করের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ত্ব। কিন্তু এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠে গেছে, তাহলে কি তৃণমূল কংগ্রেস ও যুব তৃণমূল কংগ্রেস আসলে আলাদা রাজনৈতিক সত্ত্বা? এমনিতেই বারবার খবরের শিরোনামে এসেছে বাসন্তী তৃণমূল কংগ্রেসের অভ্যন্তরীণ গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে রণক্ষেত্র হয়ে উঠে, কিন্তু আজকের ঘটনার পর তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। যদিও এই খবরের সত্যতা বা সূত্র সম্পর্কে ওই ওয়েব পোর্টালে কিছু লেখা নেই, প্রিয়বন্ধু বাংলার তরফেও এই খবরের সত্যতা যাচাই করে দেখা সম্ভব হয় নি। এই প্রবন্ধ সম্পূর্ণরূপে ওই পোর্টালে প্রকাশিত খবরের পরিপ্রেক্ষিতে করা, কোনোভাবেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয় বা কোনো ব্যক্তি বা দলের সম্মানহানির উদ্দেশ্যে রচিত নয়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!