এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > নতুন নির্দেশিকায় স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে নিয়ে নাজেহাল, ক্ষোভ বাড়ছে শিক্ষকমহলে

নতুন নির্দেশিকায় স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে নিয়ে নাজেহাল, ক্ষোভ বাড়ছে শিক্ষকমহলে

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অন্যতম স্বপ্নের প্রকল্প স্বাস্থ্যসাথী। এই প্রকল্পের আওতায় আবেদনকারী দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত সপরিবার বিমার সুবিধা পাবেন, এমনকি কঠিন অসুখ এবং অস্ত্রোপচারের জন্য মিলবে সর্বাধিক পাঁচ লক্ষ টাকা। মুখ্যমন্ত্রী শিক্ষক দিবস উপলক্ষে ঘোষণা করেন তাঁর স্বপ্নের এই প্রকল্পের আওতায় স্কুলশিক্ষকদেরও আনা হচ্ছে। কিন্তু এই প্রকল্পে নাম তোলার জন্য নতুন এক নির্দেশিকায় ভোগান্তিতে পড়ছেন শিক্ষকরা বলে অভিযোগ, ফলে অনেকেই এই প্রকল্পের আওতায় আর নিজেদের নিয়ে আসতে চাইছেন না।
আগের নির্দেশ অনুযায়ী স্বাস্থ্যসাথী বিমা প্রকল্পে নিজেকে ও নিজের পরিবারের নাম নথিভুক্ত করতে হলে, স্কুলেই যাবতীয় তথ্য জমা দিতে হবে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের, সেখান থেকে নথিপত্র যাবে জেলা স্কুল পরিদর্শকের দফতরে, তার পরে পর্যায়ক্রমে পরবর্তী ধাপগুলি পেরোবে। কিন্তু হঠাৎ করে বিকাশ ভবন সূত্রে একটি নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয়েছে, শিক্ষক-শিক্ষিকারা যেখানে থাকেন, ওই প্রকল্পে নাম তোলার জন্য আবেদন করতে হবে সেখানকার পুরসভা, বিডিওদের কাছে। ফলে বাড়ছে অসম্ভব ভোগান্তি, এমনকি নাম তুলতে গিয়ে নষ্ট হচ্ছে কর্মদিবস। আর তাই ক্রমশ হতাশ হয়ে উৎসাহ হারাচ্ছেন শিক্ষকরা। এমনিতেই ডিএ নিয়ে ক্ষোভ, তার উপরে স্বাস্থ্যসাথী নিয়েও হয়রানি – হতাশা ক্রমশ তীব্রতর হচ্ছে তাঁদের মধ্যে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!