এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > কুচবিহার নিয়ে আশাবাদী স্বয়ং নরেন্দ্র মোদী, বিজেপির অন্দরে প্রার্থীপদ নিয়ে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা

কুচবিহার নিয়ে আশাবাদী স্বয়ং নরেন্দ্র মোদী, বিজেপির অন্দরে প্রার্থীপদ নিয়ে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা


কিছুদিন আগেই দলীয় প্রচারে উত্তরবঙ্গে এসেছিলেন গেরুয়া শিবিরের ‘পোস্টার বয়’ নরেন্দ্র মোদী – আর তাঁর জনসভায় যে জনজোয়ার হয়েছিল, তা দেখে আপ্লুত তিনি। গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহলের খবর, উত্তরবঙ্গের জনসভার পরে নাকি নরেন্দ্র মোদী তাঁর ঘনিষ্ঠ নেতাদের জানিয়েছেন – বাংলায় এবার নাকি গেরুয়া ধামাকা হবে, উত্তরবঙ্গ গেরুয়াময় হয়ে গেছে। রাজ্য বিজেপির তরফেও উত্তরবঙ্গে ভালো ফলাফল নিয়ে বেশ আশাবাদ জেগে উঠেছে।

আর উত্তরবঙ্গের আসনগুলির মধ্যে অন্যতম সম্ভাবনাময় আসন নাকি কুচবিহার। কিছুদিন আগে পর্যন্ত এই আসনে বিজেপি প্রার্থী হিসাবে রাজ্ পরিবারের এক সদস্যের কথা শোনা যাচ্ছিল। নাম ভাসছিল পঞ্চানন বর্মার পরিবারের এক সদস্যেরও। তবে সূত্রের খবর, এই আসনে প্রার্থী হতে চেয়ে আবেদন করেছেন জেলা সভাপতি মালতী রাভা ও জেলা সম্পাদক দীপক বর্মন সহ জেলার তিন পদাধিকারী। আর এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই, তীব্র অস্বস্তি গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহলে।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কেননা, কিছুদিন আগেই কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় ঘোষণা করেছিলেন আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে এবার কোনো পদাধিকারী টিকিট পাবেন না। কিন্তু এখানে শুধু আবেদন করাই নয় রাজ্যস্তরে তো বটেই, টিকিট পাওয়ার জন্য তদ্বির শুরু হয়ে গেছে দিল্লি পর্যন্ত – বলে সূত্রের খবর। সবথেকে বড় কথা জেলা সভাপতি টিকিট পেলে, নির্বাচনের সময় দলের হাল সামলাবে কে – এই প্রশ্নই বড় হয়ে দেখা দিচ্ছে দলীয় কর্মীদের মধ্যে। বিশেষ করে, এই আসনে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে তুল্যমূল্য লড়াই হতে চলেছে বলেই গেরুয়া শিবিরের সমর্থকদের ধারণা।

অন্যদিকে, শুধু জেলার পদাধিকারীরাই নন – বিজেপির টিকিট চেয়ে রাজ্ পরিবারের দুজন নতুন সদস্যও আসরে অবতীর্ন হয়েছেন বলে জানা গেছে। পিছিয়ে নেই শাসকদলের এক প্রাক্তন বিধায়ক এবং এক হেভিওয়েট তৃণমূল নেতাও। এমনকি তিনবিঘা আন্দোলনের ও পঞ্চানন বর্মার স্মৃতিরক্ষা আন্দোলনের দুই হেভিওয়েট নেতার নামও নাকি আছে বিজেপির টিকিট প্রার্থিত তালিকায়। তবে, রাজ্যস্তরের এক নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নেতার বক্তব্য, এই কেন্দ্রে বিজেপির জেতার সম্ভাবনা তীব্র, ফলে স্বাভাবিকভাবেই অনেকেই টিকিট পেতে আগ্রহী। তাঁর কথামত, এই কেন্দ্রের প্রার্থীর নাম তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীতালিকা প্রকাশের পরেই হতে পারে – যা নিয়েও কিন্তু কম জল্পনা ছড়াচ্ছে না!

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!