এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাজনীতিটা জাঁকিয়েই করতে এসেছেন প্রথম থেকেই প্রমাণ করে দিচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী

রাজনীতিটা জাঁকিয়েই করতে এসেছেন প্রথম থেকেই প্রমাণ করে দিচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী

কথায় আছে, উত্তরপ্রদেশে যে রাজনৈতিক দল ভালো ফল করে তারাই কেন্দ্রের মসনদ দখলে এগিয়ে থাকে। আর জাতীয় রাজনীতিতে দীর্ঘদিন ধরেই সমীকরণ দেখে আসা কংগ্রেসের গান্ধী পরিবারের অন্যতম সদস্য কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী কিছুদিন আগেই নানা জল্পনা-কল্পনাকে দূরীভূত করে অবশেষে ভারতবর্ষের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর নাতনি প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে সেই উত্তরপ্রদেশের দায়িত্ব দিয়েছেন।

আর রাজনীতিতে পদার্পণ করেই হেলিয় যে তিনি কিছু ছেড়ে দিতে চান না তা সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশে গিয়ে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীর সঙ্গে 30 কিমি রোড শো করে প্রমাণ করে দিয়েছেন সোনিয়া গান্ধীর কন্যা প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্র।

তবে শুধু রোড-শোই নয়, উত্তর প্রদেশের 80 টি লোকসভা আসন নিজেদের দখলে রাখতে মঙ্গলবার প্রায় সারা রাত ধরে মোট 16 ঘণ্টা উত্তরপ্রদেশের নেতাকর্মীদের সঙ্গে টানা বৈঠক করেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। আর রাজনীতিতে নেমে প্রথম ধাপেই দলের সংগঠনকে চাঙ্গা করার জন্য প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর এহেন উদ্দীপনা উৎসাহ যোগাচ্ছে কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

একাংশের মতে, শত্রু হোক বা মিত্র প্রায় প্রত্যেকেই প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর এই রাজনীতিতে নামার পর মন্তব্য করেছিলেন যে, ভারতবর্ষের প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর মতনই দেখতে তাঁর একমাত্র নাতনী প্রিয়াঙ্কা। আর তাই সেই দিক থেকে প্রিয়াঙ্কা যদি রাজনৈতিক ভাবে কিছুটা হলেও শক্তিশালী হয় তাহলে প্রবল চাপে পড়তে পারে বিজেপি।

তবে ভবিষ্যতের কাঁধে সবকিছুকে ছেড়ে না দিয়ে রোড শো করে এদিন সারা রাত ধরে উত্তরপ্রদেশের কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে প্রিয়াঙ্কার এই বৈঠক অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

সূত্রের খবর, এদিনের এই বৈঠকে উত্তরপ্রদেশে লখনউ, উন্নাও, লালগঞ্জ, সুলতানপুর, ফতেহপুর এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর লোকসভা কেন্দ্র বারানসী এবং উত্তরপ্রদেশের বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কেন্দ্র গোরক্ষপুর নিয়ে কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করেন উত্তরপ্রদেশের দায়িত্বে থাকা কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। আর বুধবার ভোরে এই বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে প্রিয়াঙ্কা

গান্ধী বলেন, “আমি সংগঠনের কাছ থেকে অনেক কিছু শিখছি। যার মধ্যে অন্যতম হল এই সংগঠন কিভাবে গঠন হয়েছিল এবং বর্তমানে সেখানে কি কি পরিবর্তন করা দরকার।” কিন্তু প্রথম রাজনীতিতে নেমে ঠিক কি রকম অভিজ্ঞতা হচ্ছে? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের উত্তরে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর জবাব, “দারুন অনুভুতি। আমার জন্য দলের কর্মীরা অনেকক্ষণ ধরে অপেক্ষা করছেন।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে গোবলয় হিসেবে পরিচিত উত্তরপ্রদেশে নিজেদের ঘাঁটিকে শক্ত করে সেখান থেকে বিপুলসংখ্যক আসন নিজেদের দখলে আনতে চান কংগ্রেসের রাহুল গান্ধী। আর তাইতো সেই উত্তরপ্রদেশের দায়িত্ব এই প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্রকে দিয়ে সেখানে হাত শিবিরের ভিত শক্ত করতে চাইছেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি।

Top
error: Content is protected !!