এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে বহু প্রাথমিক বিদ্যালয়, জানুন বিস্তারিত

আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে বহু প্রাথমিক বিদ্যালয়, জানুন বিস্তারিত

অবশেষে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলি নিয়ে বড়সড় সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে রাজ্য সরকার। 20 জনের নীচে ছাত্র থাকা বিদ্যালয়গুলিকে এবার খাতায় কলমে উঠিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল শিক্ষা দপ্তর। সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার স্কুলশিক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে জারি করা এক নির্দেশিকায় স্পষ্ট ভাষায় এই কথায় জানিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু এখানেই প্রশ্ন, তাহলে সেই 20 জন ছাত্রদের নিয়ে যে বিদ্যালয় চলে সেই বিদ্যালয় উঠে গেলে তারা যাবে কোথায়?

জানা গেছে, এরকম স্কুলের ছাত্রদের আগের স্কুল থেকে এক কিলোমিটারের মধ্যে যে কোনো স্কুলে পাঠানো হবে। আর যতদিন না অন্য স্কুলে সেই সব ছাত্রদের পাঠানোর কাজ শুরু হচ্ছে ততদিন সেই কম ছাত্রবিশিষ্ট স্কুলে দুজন শিক্ষক থাকবেন। তবে অন্যান্য শিক্ষকদের নির্দিষ্ট মহকুমা ছাড়া অন্য কোথাও বদলি করা যাবে না বলেও নির্দেশিকায় জানিয়ে দিয়েছে শিক্ষাদপ্তর। খুব বেশি হলে সেই বদলি জেলায় হতে পারে, তবে তা জেলার বাইরে নিয়ে যাওয়া চলবে না। কিন্তু এই গোটা প্রক্রিয়াটি সামলাবেন কারা?

জানা গেছে, এর জন্য রাজ্যের প্রত্যেকটি জেলায় একটি করে কমিটি থাকবে। যেখানে চেয়ারম্যান হিসাবে জেলাশাসক বা সহকারী জেলাশাসক, সদস্য হিসাবে জেলার বিদ্যালয় শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান এবং এই গোটা কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে থাকবেন জেলার ডিআই। এমনকী সর্বশিক্ষা মিশনের জেলা প্রকল্প আধিকারিকেরাও এই কমিটির সদস্য হবেন। তবে যেহেতু কোলকাতায় কোনোও জেলাশাসক নেই সেক্ষেত্রে সেইখানে স্কুলশিক্ষা কমিটির এক প্রতিনিধিকে চেয়ারম্যান করে সেখানে কমিটি গড়া হবে। মূলত কি কি কাজ করবে প্রতিটি জেলায় নিযুক্ত এই কমিটি? সূত্রের খবর, ছাত্র শিক্ষকের আদর্শ অনুপার 1:30 এর চেয়ে নীচে থাকা বিদ্যালয়গুলিকে উপরের দিকে রেখে 20 সংখ্যার নীচে ছাত্র থাকা স্কুলগুলিকে বেছে নিয়ে তার তালিকা তৈরি করতে হবে জেলার কমিটিগুলিকে। আর এরপরই শুরু হবে শিক্ষক বদলির প্রক্রিয়া। তবে এক্ষেত্রেও কিছু নিয়ম রয়েছে। জেলায় এই বদলির ক্ষেত্রে প্রথমে পুরুষ এবং পরে মহিলাদের অগ্রাধিকার দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে এই ব্যাপারে আগামী তিনদিনের মধ্যে একটি রূপরেখা শিক্ষা দপ্তরের কাছে পাঠাবেন কমিশনার। আর এরপর সেই শিক্ষাদপ্তরের তরফ থেকে এই ব্যাপারে সবুজ সংকেত মিললেই আগামী দু সপ্তাহের মধ্যে শুরু হবে আন্তঃজেলা বদলির রুপরেখা প্রকাশের কাজও। কিন্তু যেসব স্কুলে আর কোনো ক্লাস হবে না সেগুলি কি হবে? জানা গেছে, সেই স্কুলভবনগুলি শিক্ষামূলক বিষয়েই ব্যাবহার করবে শিক্ষাদপ্তর। এদিকে এই ব্যাপার নিয়ে গত দুদিন আগেই কমিশনারের সাথে একটি বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আর শিক্ষামন্ত্রীর তরবফ থেকে সবুজ সংকেত পাওয়ার পরেই এই বিষয়ে নির্দেশিকা জারি করল শিক্ষাদপ্তর।

Top
error: Content is protected !!