এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > গুপ্তযুগের মূর্তি, ৩০০ ঘর – রাষ্ট্রপতি ভবনের ১০ আশ্চর্য

গুপ্তযুগের মূর্তি, ৩০০ ঘর – রাষ্ট্রপতি ভবনের ১০ আশ্চর্য

স্বাধীন ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনের নাম ‘রাইসিনা হিলস’। দেশের সবচেয়ে বড় সরকারি ভবন। শুধু তাই নয়, পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহৎ সরকারি ভবন এটি। যা প্রত্যেক ভারতীয়ের কাছে গর্বের। আমেরিকার হোয়াইট হাউসের থেকেও বড় আমাদের রাইসিনা হিলস। পার্লামেন্টের মতোই ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনের নকশা করেছিলেন ব্রিটিশ স্থপতি স্যর এডুইন লুটিয়েনস। ৩২০ একর অর্থাৎ ১৩০ হেক্টর জমির নিয়ে ভবনটি তৈরি। রাইসিনা হিলসের থেকে বেশী জায়গা নিয়ে তৈরি ভবন পৃথিবীতে একটাই আছে। সেটা ইটালির রোমে ‘কুইরিনাল প্যালেস’।

১০) চিলড্রেনস গ্যালারি
শিশুরাই জাতির ভবিষ্যৎ। তাই ছোটদের জন্য আগাধ ভালোবাসা আছে দেশের সর্বোচ্চ নাগরিকের। মূল গ্যালারি দুটি অংশে বিভক্ত। প্রথম অংশ সাজানো রাষ্ট্রপতির উদ্দেশ্যে সারা দেশের শিশুদের লেখা চিঠি, লেখা, চিরকূট দিয়ে। দ্বিতীয় অংশে শিশুদের উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রপতির লেখা চিঠি, বই, বাজনা, ইলিউশন সামগ্রী দিয়ে।

৯) গার্ড সেরিমনি
রাষ্ট্রপতি ভবনের এই প্রথা পালন হয় প্রতি শনিবার সকাল ১০ টায়। রাষ্ট্রপতি থাকাকালীন প্রণব মুখার্জি এই অনুষ্ঠান সাধারন মানুষের অংশগ্রহণের জন্য খুলে দেন। শুধু পরিচয়পত্র নিয়ে ২ নাম্বার গেটে উপস্থিত হলেই মিলবে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের সুযোগ।

৮) বিখ্যাত অশোকা হল
অসাধারন সুন্দর সাজানো ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনের অশোকা হল। দেওয়ালে প্রাচীন যুগের শিল্পীদের বড় ক্যানভাস ছবি সাজানো। রয়েছে বড় বড় ফ্রেস্কো বা দেওয়ালচিত্র। ব্রিটিশ আমলে এই ঘরে বলড্যান্সের আয়োজন করা হত। এখন শপথ গ্রহণের মতো সরকারি অনুষ্ঠান হয়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

৭) রান্নার জাদুঘর
যাবতীয় প্রশ্ন ‘কীভাবে রাঁধতে হবে?’ তাই রান্নাঘরের আয়োজন। অসাধারণ সব নকশার ক্রকারি, কাপ-প্লেট, পানপাত্র, হাতা-চামচের বিপুল সম্ভার।

৬) ব্যাঙ্কয়েট হল
রাষ্ট্রপতি ভবনকে ‘একটা বাড়ির মধ্যে আস্ত শহর’ বললে ভুল হবে না। এই ঘরে ১০০ অতিথির বসার বন্দোবস্ত আছে। কোনও সেমিনার কিংবা বিদেশী প্রতিনিধিদের আপ্যায়নের জন্য খুলে দেওয়া হয় ব্যাঙ্কয়েট হল।

৫) মুঘল গার্ডেন
‘মুঘল গার্ডেন’ ছাড়া রাষ্ট্রপতি ভবনের কথা অসমাপ্ত থেকে যায়। সারা পৃথিবীর সমস্ত জাতের এবং সব রঙের গোলাপ ফোটে এই বাগানে। প্রতি বছর ফেব্রুয়ারি মাসে জনসাধারণের প্রবেশের জন্য খুলে দেওয়া হয় বাগান।

৪) ঘর
অথিথি এবং কর্মচারীদের নিয়ে রাষ্ট্রপতি ভবনের ঘরের সংখ্যা ৩০০ টি।

৩) গৌতম বুদ্ধের মূর্তি
গুপ্তযুগে তৈরি একটি অমূল্য গৌতম বুদ্ধের মূর্তি রাখা আছে রাষ্ট্রপতি ভবনের দরবার হলে। মূর্তিটির উচ্চতা ইন্ডিয়া গেটের সমান।

২) দরবার হল
অসাধারণ স্থাপত্যের নমুনা রাষ্ট্রপতি ভবনের দরবার হল। ইন্ডিয়া গেটের সঙ্গে সোজা এক সরলরেখায় বানানো এই হল দেখা যায় অনেক দূর থেকে। উৎসবের সময় হল সেজে ওঠে রঙ বেরঙের আলোয়।

১) মার্বেল হল
বিরল ব্রিটিশ রয়্যালটির নমুনা সাজানো রয়েছে মার্বেল হলে। আছে তৎকালীন ভাইসরয়ের মূর্তি। তবে এই হল বিখ্যাত ভারতীয় রাষ্ট্রপতিদের মোমের মূর্তির জন্য। স্বাধীনতার আম্ল থেকে এলহ্ন পর্যন্ত যতজন রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়েছেন প্রত্যকের মোমের মূর্তি রাখা আছে এই হলে। এই মূর্তি তৈরি করেন পশ্চিমবঙ্গের এক শিল্পী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!