এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শ তৃণমূলকে, কি বলছে বিরোধীরা, জেনে নিন

প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শ তৃণমূলকে, কি বলছে বিরোধীরা, জেনে নিন

Priyo Bandhu Media


২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে ১৮টি আসন হাতছাড়া হবার পরই দলকে পুনরায় চাঙ্গা করতে নতুন স্ট্রাটেজি নিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জী। লোকসভা ভোটের ভরাডুবি থেকে শিক্ষা নিয়ে তৃণমূল বিধায়কদের কার্যত কড়া বার্তা দিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার তৃণমূল ভবনের দলীয় বৈঠকে বিধায়কদের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ বিলাসবহুল জীবনযাপন ছেড়ে জনসংযোগ বাড়াতে হবে।প্রতি সপ্তাহে বিধায়কদের নিজ নিজ কেন্দ্রের সাধারণ মানুষের সমস্যা মেটানোর জন্য বাড়তি সময়ও দিতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।দিনের বৈঠকে উপস্থিত জনপ্রতিনিধিদের স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয় যে কাউন্সিলরদের বিরুদ্ধে ওঠা নানা অভিযোগ যে ভিত্তিহীন নয়, তার প্রমান আগেই পেয়েছেন দলনেত্রী।

এদিনের বৈঠকে প্রত্যাশিতভাবেই গরহাজির ছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। তবে বিধাননগরের প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্তের অনুপস্থিতি রাজনৈতিক মহলে নতুন করে বিতর্ক সৃষ্টি করেছে। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বিধানসভার পরিষদীয় দায়িত্বের কারণে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না। তবে দলীয় বৈঠকে বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দোপাধ্যায় -এর উপস্থিতি নতুন করে জল্পনা বাড়িয়েছে। বিমানবাবুর যুক্তি, তিনি দলের নির্বাচিত বিধায়ক, সেই পদাধিকারে তিনি সেখানে থাকতেই পারেন।পরে, সাংবাদিকদের থেকে এই কথা শুনে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জিও তাঁর এই বক্তব্যকে সমর্থন করেছেন।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

প্রতি বিধানসভা এলাকায় জনসংযোগ বাড়াতে প্রত্যেক বিধায়ককে চারজনের উপর দায়িত্ব ভাগ করে দিতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ১৮ই জুলাই এর মধ্যেই চারজন করে নির্বাচিত ব্যক্তিদের নাম বিধায়কদের পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।এঁরা দেখবে সোশ্যাল মিডিয়া, প্রস্তুত করবে ভোটার তালিকা এবং দুজন সংশ্লিষ্ট বুথভিত্তিক দায়িত্ব পালন করবে।

বস্তুত, নির্বাচনকুশলী পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শ মতোই তৃণমূল সুপ্রিমো বিধায়কদের সাথে একাধিক বৈঠক করে নতুন স্ট্রাটেজি নিয়ে চলছেন।তরুণদের দলীয় কার্যকলাপে ইনভলভ করার জন্যই পরামর্শদাতার কথা মতো মুখ্যমন্ত্রীর এই নতুন পদক্ষেপ গ্রহণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

প্রসঙ্গত, এই বৈঠকে উপস্থিত না থাকলেও বৈঠক শুরুর ১ ঘন্টা আগে সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে একই গাড়িতে চেপে প্রশান্ত কিশোর তৃণমূল ভবনে ঢোকেন।বিকেল ৩ টার সময় বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক থাকলেও তার অনেক আগে সেখানে চলে আসেন মমতা ব্যানার্জিও। বিধায়কদের সঙ্গে বসার আগে তিনি নির্বাচনী স্ট্রাটেজিস্ট প্রশান্তের সঙ্গে একটি বৈঠক করে নেন।

বিরোধী নেতারা অবশ্য আজকের প্রশান্তের এই উপস্থিতি নিয়ে জোরদার কটাক্ষ করছে। বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘কী দিনকাল পড়েছে!রাজনৈতিক নেতাদের টিপস দিচ্ছেন একজন পেশাদার লোক।’

বৈঠকে অনুপস্থিত তৃণমূলের নিউটাউন- রাজারহাটের বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত ও ২ দিন আগে সংবাদমাধ্যমের সামনে বিস্ফোরক অভিযোগ করেছিলেন যে , জনগনের টাকা থেকেই রাজনৈতিক পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোরকে চার- পাঁচশো কোটি টাকা পারিশ্রমিক দেওয়া হচ্ছে।পাশাপাশি তিনি এইটাও বলেছিলেন যে, ” প্রশান্ত কিশোর টাকার বিনিময়ে তৃণমূলকে যা পরামর্শ দিচ্ছে সেটা মুকুল রায় আমাকে বিনাপয়সায় দিচ্ছেন।”

এর আগে দিলীপ ঘোষ ও বলেছিলেন যে মমতা ব্যানার্জীর ক্যারিশমায় র তৃণমূল দলটা চলছেনা তাই বাইরে থেকে আনা বিশেষজ্ঞের ওপর ভরসা করতে হচ্ছে। এত বিতর্কের পরে প্রশান্তের দেখানো রাস্তায় চলে কি ২০২১ এ সাফল্য পাবে তৃণমূল, ভবিষ্যৎ উত্তর দেবে এই প্রশ্নের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!