এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রশান্ত কিশোরের নেতৃত্বে প্রথম পার্টি ক্লাস হল তৃণমূলের! জেনে নিন বিস্তারিত

প্রশান্ত কিশোরের নেতৃত্বে প্রথম পার্টি ক্লাস হল তৃণমূলের! জেনে নিন বিস্তারিত

2011 সালের পর 2016 সালের বিধানসভা নির্বাচন পর্যন্ত পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তৃণমূলকে। একের পর এক নির্বাচনে বিপুল পরিমাণে জয় এসেছে ঘাসফুল শিবিরের। কিন্তু 2019 এ এসেই যেন সেই জয়ের যাত্রা কিছুটা থমকে গেল। 42 এ 42 এর স্লোগান দিয়েও 22 টা আসনেই ঠেকে যেতে হয়েছে তাদের।

অন্যদিকে বিজেপি 2 থেকে তাদের আসন সংখ্যা 18 করে নিয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে সামনের 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনে কিভাবে দলকে ঘুরে দাঁড় করানো যাবে, তার জন্য ভোটগুরু হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভরসা রেখেছেন প্রশান্ত কিশোরের উপর। আর দায়িত্ব পেয়েই এবার সেই প্রশান্ত কিশোর তৃণমূলের সকল জেলার জেলা সভাপতিদের নিয়ে পার্টি ক্লাস করলেন।

সূত্রের খবর, শুক্রবার 11 টা থেকে দুপুর তিনটে পর্যন্ত তৃণমূলের ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হল। যেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য তৃণমূলের সভাপতি সুব্রত বক্সী, মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং তৃণমূল যুবর সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মূল বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সেই প্রশান্ত কিশোর। তৃণমূলের যে সমস্ত জেলা সভাপতিরা বাংলা ভাষায় বক্তব্য রাখছিলেন, প্রশান্ত কিশোরকে সেই সমস্ত কথা হিন্দি বুঝিয়ে দিচ্ছিলেন তৃণমূলের সুব্রত বক্সী। আর তারপরই তার সঠিক ব্যাখ্যা দিচ্ছিলেন ভোটগুরু।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

জানা গেছে, এদিন দলকে ঘুরে দাঁড় করানোর জন্য তৃণমূল নেতৃত্বকে একগুচ্ছ বার্তা দেন প্রশান্ত কিশোর। যার মধ্যে প্রথমত, বুথস্তরে 15 জনের কমিটি করা, যাদের ফোন নম্বর রাজ্য নেতৃত্বের কাছে থাকবে এবং রাজ্যের সাথে তাদের প্রতিনিয়ত যোগাযোগ থাকবে।

দ্বিতীয়ত, এলাকার বিধায়কদের সাধারণ মানুষের সঙ্গে আরও বেশি করে জনসংযোগ রক্ষা করা। তৃতীয়ত, পুলিশি নির্ভরতা কমিয়ে দলকে আরও সঠিকভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া, চতুর্থত, ক্ষমতার অপব্যবহার না করে সবার সাথে সম্পর্ক ভালো রাখা এবং পঞ্চমত, দলের শীর্ষস্তর থেকে যে নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে, তা নিচুতলা পর্যন্ত সঠিকভাবে পালন করা। আর প্রথম দলের অন্দরে এহেন পার্টি ক্লাসে কিছুটা হলেও উজ্জীবিত ঘাসফুলের নেতৃত্বরা।

অনেকে বলছেন, “ক্ষমতায় থাকতে থাকতে অনেকেই ভেবেছিলেন যে জয় অনায়াসেই চলে আসবে। কিন্তু এই গা ছাড়া ভাবের জন্যই সংগঠনের বিরাট ক্ষতি হয়েছে। আর সেই কথাই প্রশান্ত কিশোর তুলে ধরেছেন। যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।”

অন্যদিকে একাংশের মতে, বেশি সৌখিন হওয়া এবং সোনার চেন ও গাড়ি নিয়ে ঘোড়া মানুষ পছন্দ করেনি। আর তাই এবারের নির্বাচনে অত্যন্ত খারাপ ফলাফল হয়েছে। আর এই সমস্ত কিছু ঠিক করতেই ভোটগুরু তার প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়েছেন। সব মিলিয়ে তৃণমূলের জেলা নেতৃত্বরা প্রথম প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে বৈঠক করে বেশ খুশি।

Top
error: Content is protected !!