এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পথ দেখিয়েছেন শোভন! এবার মমতা ব্যানার্জির কাছে ভাইফোঁটা নিতে চান খোদ দিলীপ ঘোষ?

পথ দেখিয়েছেন শোভন! এবার মমতা ব্যানার্জির কাছে ভাইফোঁটা নিতে চান খোদ দিলীপ ঘোষ?


দীপাবলীর মরশুমে এবার দুই অনন্য ঘটনা দেখতে পেলেন রাজ্যবাসী রাজনৈতিক আবহে। প্রথমটি হলো মুখ্যমন্ত্রীর আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে সমস্ত সংঘাত বিসর্জন দিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের সস্ত্রীক মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে কালীপুজোর সন্ধ্যায় উপস্থিতি। দ্বিতীয়টি চমকপ্রদ বললেও কম বলা হবে। ভাতৃদ্বিতীয়ার দুপুরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে বিজেপি নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়সহ উপস্থিত হওয়া। দুটি ঘটনাই রাজনৈতিক মহলে তীব্র আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। দুটি ঘটনাই নতুন রাজনৈতিক সমীকরণের দিকে অঙ্গুলি হেলন করছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

তবে বিজেপির পক্ষ থেকে এই ঘটনায় এখনই নতুন করে কোন মন্তব্যের প্রয়োজন মনে করছে না রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এবার শোভন চট্টোপাধ্যায়ের দেখানো পথ ধরেই সংবাদ মাধ্যমের সামনে তিনি খুব স্বাভাবিক ভাবেই জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর নিমন্ত্রণ গ্রহণ করতে তিনি আগ্রহী।

রাজনৈতিক জল্পনা শুরু হয়েছিল প্রথম কালীপুজোর সন্ধ্যায় মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে রাজ্যপালের সস্ত্রীক উপস্থিতি। এই ঘটনায় রাজ্যের রাজনৈতিক মহলের আলোচনা চলছিলই, আর তারপরেই আবার ভাইফোঁটার দিন নতুন করে চমক। মুখ্যমন্ত্রীর আমন্ত্রণ গ্রহণ করে এমনিতেই রাজ্যপাল সবাইকে চমকে দিয়েছিলেন। কালীপুজোর দিন মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির নিমন্ত্রণ রক্ষা করে বেরোনোর সময় তিনি বলেন, ‘আমার ভাইফোঁটায় আমন্ত্রিত থাকার ইচ্ছে ছিল। তবে কালীপুজোই বা মন্দ কি?’

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গ টেনে এনে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী আমাকে ভাইফোঁটা দিতে চাইলে অবশ্যই যাব। উৎসবে রাজনীতি থাকা উচিত নয়। তবে রাজনীতির মানুষদের উৎসবে থাকা উচিত।’ দিলীপবাবু আরো বলেন, ‘আমার নিজের কোনও বোন নেই। মামাতো বোন রাজারহাটে থাকে। সে আমাকে ফোঁটা নিয়ে নিমন্ত্রণ জানিয়েছিল। গত রাতেই তাঁর বাড়ি থেকে ফোঁটা নিয়ে এসেছি।

অন্যদিকে, বিজেপি শিবিরেও ভাইফোঁটার দিন চমক ছিল। রাজ্য বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় ঐদিন সকালবেলা দিলীপ ঘোষের বাড়িতে পৌঁছে যান ভাইফোঁটা দেবার উদ্দেশ্যে। রাজ্য বিজেপি সভাপতি লকেট চট্টোপাধ্যায় এর কাছে ভাইফোঁটা নেন।

উৎসবের আবহে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলিতে রাজনৈতিক মহলে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। রাজনৈতিক মহলের অলিতে-গলিতে এখন একটাই গুঞ্জন, তাহলে কি শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলে ফিরে আসার ইঙ্গিত দিলেন ?

অন্যদিকে এবার রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের বক্তব্যকে ঘিরে এক নতুন বিতর্কের জন্ম দিল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মতনই দিলীপ ঘোষেরও মুখ্যমন্ত্রীর কাছে ভাইফোঁটা নিতে চাওয়ার কথায় রাজ্য বিজেপি শিবিরেই গুঞ্জন শুরু হয়েছে। আপাতত ভবিষ্যতে কোন সমীকরণের পথে পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি যেতে চলেছে সেদিকে নজর রাখবে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!