এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > পুলিশকে ধমকের জের, নজরে বিজেপি প্রার্থী – রিপোর্ট তালেব কমিশনের, হতে পারে শাস্তি

পুলিশকে ধমকের জের, নজরে বিজেপি প্রার্থী – রিপোর্ট তালেব কমিশনের, হতে পারে শাস্তি


গান নিয়ে বিতর্ক আগেই বেঁধেছিলো সেই বিতর্ক মিটতে না মিটতেই এবার ফের নতুন বিতর্কে জড়ালেন আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের বিদায়ী সংসদ ও বিজেপি প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়। যার জল গিয়ে পৌঁছেছে কমিশন অবধি।

জানা যাচ্ছে যে, কুলটি থানার বরাকর ফাঁড়ির IC রবীন্দ্রনাথ দলুইকে ধমকের জেরে তাঁর বিরুদ্ধে রিপোর্ট তলব করল কমিশন। প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার বিজেপির কুলটি মণ্ডলের সাধারণ সম্পাদক রাজু যাদবের বাড়িতে ভাঙচুর করে দুষ্কৃতীরা। অভিযোগ দুষ্কৃতী নয় তারা ছিলেন পুলিশ। অভিযোগ পুলিশ শুধু ভাংচুর করেই খান্ত হয়নি সাথেই মহিলাদেরকেও নিগ্রহ করা হয় ,আর এই ঘটনাতেই বেজায় ক্ষুব্ধ হন বাবুলবাবু।

এই ঘটনার পর প্রায় জনা পঞ্চাশেক মহিলাকে নিয়ে কুলটি থানার বরাকর ফাঁড়ি ঘেরাও করেন বাবুল সুপ্রিয়। ফাঁড়ির মধ্যে ঢুকে দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসারকে এই নিয়ে প্রশ্ন করাকালীন উত্তজনা ছড়ায়। এর পর বাবুলবাবু দায়িত্বপ্রাপ্ত IC রবীন্দ্রনাথ দলুইকে ধমক দিতে থাকলে ওই অফিসার বলেন, “আপনাকে আমি শ্রদ্ধা করি। এভাবে কথা বলবেন না ।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর এর পরেই ভীষণ চোটে যান বিজেপি প্রার্থী আর তিনি উল্টে অফিসারকে তীব্র আক্রম করে বলেন যে, “তোমার মতো নীচ, নরকের কীটের কোনও শ্রদ্ধার দরকার নেই আমার। তোমার থেকে আমি শ্রদ্ধা নেব না। কে তুমি যে শ্রদ্ধা করবে। এতজন মহিলাকে বাড়িতে গিয়ে গালিগালাজ করে এসেছ। তোমার মাকে গিয়ে দেখাব ভিডিয়োগুলি?।”

আর এই নিয়েই শুরু বিতর্ক। একজন প্রার্থী হয়ে কিভাবে একজন দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসারকে ধমক দিতে পারেন তিনি? এই নিয়ে বিরোধীরা প্রশ্ন তুলতেই নড়েচড়ে বসেছে কমিশণ। এদিন পশ্চিম বর্ধমানের পুলিশ সুপারকে এই বিষয়ে রিপোর্ট পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কমিশনের তরফ থেকে। আজকেই সেই রিপোর্ট পৌঁছে যেতে পারে। আর এর পরে কি হয় সেই দিকেই তাকিয়ে সবাই। রাজনৈতিকমহলের মতে, রিপোর্ট খতিয়ে দেখে কড়া ব্যবস্থা নেওয়াও হতে পারে বিজেপি প্রাথীর বিরুদ্ধে। আর তা যদি হয় তাহলে কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে যাবে বিজেপি।

অন্যদিকে যদি বাবুলবাবুর দাবি মতো পুলিশ ধামকি দিচ্ছে সেই ভিডিও কমিশনের কাছে পৌঁছয় তাহলে সেই পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধেও কড়া হতে পারে কমিশন। আর সেখানেই ফের রাজ্য প্রশাসনের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারে বলে মত সংশ্লিষ্টমহলের।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!