এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপির পক্ষপাতদুষ্ট পুলিশের নিচুতলার কর্মী এবং সিভিক ভলান্টিয়ারদের শায়েস্তা করতে ব্যবস্থা নিচ্ছে তৃণমূল

বিজেপির পক্ষপাতদুষ্ট পুলিশের নিচুতলার কর্মী এবং সিভিক ভলান্টিয়ারদের শায়েস্তা করতে ব্যবস্থা নিচ্ছে তৃণমূল

লোকসভা ভোটে তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির প্রবল উত্থানের পরই রাজনৈতিক সমীকরণ বদলাতে শুরু করে। এমনকি দিকে দিকে শাসকদলের জনপ্রতিনিধিরা বিজেপিতে যোগদান করায় উজ্জীবিত হয়ে ওঠে গেরুয়া শিবির। আর রাজ্যের রাজনৈতিক সমীকরণ বদলানোর পাশাপাশি এতদিন পুলিশ, প্রশাসন তৃণমূলের হয়ে কাজ করছে বলে বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হলেও এবার তৃণমূলের পক্ষ থেকে সেই নিচুতলার পুলিশ কর্মীরা তাদের কথা শুনছে না বলে অভিযোগ জানানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

সম্প্রতি নবান্নে রাজ্যের মন্ত্রী এবং পুলিশ প্রশাসনের সাথে বৈঠকে একাধিক মন্ত্রী নিচুতলার পুলিশকর্মীরা তাদের কথা শুনছে না বলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে উষ্মা প্রকাশ করেন। যা নিয়ে প্রকাশ্যে রাজ্যের পুলিশকর্তার উপর ক্ষোভ উগরে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর পুলিশের বিরুদ্ধে মুখ্যমন্ত্রীর এই বিষোদগার দেখে উজ্জীবিত হয়ে ওঠেন হাওড়া জেলা তৃণমূলের অনেক নেতারাই।

কেননা এবারের লোকসভা নির্বাচনে হাওড়া উদয়নারায়নপুর বিধানসভায় তৃণমূলের লিড কমে আসার পর থেকেই বিভিন্ন জায়গায় রাজনৈতিক সংঘর্ষের খবর পাওয়া যেতে শুরু করেছে।আর এই সমস্ত ঘটনায় বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তোলা হলেও নিচু তলার পুলিশকর্মী না সেইভাবে কোনও পদক্ষেপ নিচ্ছে না বলে অভিযোগ জানাতে দেখা গেছে এখানকার তৃণমূল নেতাদের। আর তাই এবার এই পক্ষপাতদুষ্ট পুলিশকর্মীদের শায়েস্তা করতে শাসক দলের নেতাদের পক্ষ থেকে একটি গোপন তালিকা তৈরি করা হয়েছে বলে খবর।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে হাওড়া গ্রামীণ জেলা তৃণমূলের এক নেতা বলেন, “পুলিশ কর্মী এবং সিভিক ভলান্টিয়ারদের পক্ষপাতমূলক আচরণের প্রমাণ সহ নামের তালিকা তৈরি হচ্ছে।” অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে উদয়নারায়নপুরের তৃণমূল বিধায়ক সমীর পাঁজা বলেন, “পুলিশ প্রশাসনের নিরপেক্ষ হওয়া দরকার। কিছুটা হলেও সেই নিরপেক্ষতায় ঘাটতি দেখা দিতে শুরু করেছে। এটা কাম্য নয়।”

পাশাপাশি তারা সমস্ত বিষয়টি উপর নজর রাখছে এবং এটা প্রশাসনিক ও রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করা হবে বলে জানিয়েছেন হাওড়া গ্রামীণ জেলা তৃণমূল সভাপতি পুলক রায়। এদিকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে নিচুতলার পুলিশকর্মীদের ব্যবহারে উপরতলায় অভিযোগ জানানোর জন্য তালিকা তৈরি করা হলেও তা নিয়ে পাল্টা প্রশ্ন তুলে দিয়েছে বিজেপি।

গেরুয়া শিবিরের অভিযোগ, লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি এরাজ্যে মাথা তুলে দাঁড়ানোর পরই কিছু কিছু জায়গায় পুলিশকর্মীরা নিরপেক্ষভাবে কাজ করায় অসুবিধা হয়ে গেছে তৃণমূলের। তাই তো এতদিন পুলিশ তাদের হয়ে দলদাসমূলক ভাবমূর্তি দেখালে তা তাদের কাছে সুখের হলেও এবার সেই পুলিশই নিরপেক্ষভাবে কাজ করায় এবং তৃণমূল দাদাদের কথা না শোনায় তা তৃণমূলের গায়ে লাগতে শুরু করেছে। আর তাই এখন বিজেপি সন্ত্রাস করলেও পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে তৃণমূল মিথ্যে নাটক করছে।

এদিকে তৃণমূল বনাম বিজেপির এই তরজার মাঝেই রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ মনে করছেন, নিঃসন্দেহে পুলিশ যদি পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ করে তাহলে সেই ব্যাপারে কোনো রাজনৈতিক দলের অভিযোগ জানানোর থাকতেই পারে। কিন্তু যেখানে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস, সেখানে তাদের পুলিশই কেন তাদের হাতের বাইরে বেরিয়ে যাচ্ছে তা নিয়ে কিন্তু একটা প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। তাহলে কি পুলিশমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর দায়িত্ব পালন করতে ব্যর্থ! আর পরোক্ষে সেই কথা না বলে নিচুতলার পুলিশকর্মীরা তাদের কথা শুনছে না বলে সেই দিকেই ইঙ্গিত করতে শুরু করেছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা! বর্তমানে এই সব প্রশ্ন নিয়েই শাসকের বিরুদ্ধে সুর চড়াতে শুরু করেছে বিরোধীরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!