এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ছক ভাঙ্গা ছকেই ছাপ্পা রোখার মহা-পরিকল্পনায় বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে

ছক ভাঙ্গা ছকেই ছাপ্পা রোখার মহা-পরিকল্পনায় বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে

প্রথম দফার নির্বাচনের পরই রাজ্যের অনেক বুথে সেইভাবে কেন্দ্রীয় বাহিনী দেখা যায়নি বলে অভিযোগ তুলতে দেখা গিয়েছিল বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে। এমনকি প্রথম দফায় ভোট হওয়া কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ার লোকসভা আসনে যে যে বুথগুলোতে রাজ্যের সশস্ত্র পুলিশ ছিল, সেখানে গণতন্ত্রকে প্রহসনে পরিণত করা হয়েছে এই অভিযোগ করে পরবর্তী দফাগুলোতে যাতে প্রতি বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা যায়, তার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদনও জানিয়েছিল বিরোধীরা।

আর এবার তৃতীয় দফার লোকসভা ভোটে আধাসেনা মোতায়েন ঠিক কিভাবে করা হবে, সেই ব্যাপারে ছক কষতে শুরু করে দিয়েছেন কেন্দ্রের পক্ষ থেকে রাজ্যের জন্য নিযুক্ত বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে। বস্তুত এই তৃতীয় দফার ভোটে বাংলার 5 টি লোকসভা কেন্দ্রের সব বুথে যদি কেন্দ্রীয় বাহিনী না দেওয়া যায়, তাহলে শান্তিপূর্ণ ভোট সম্ভব নয় বলে খবর পান বাংলায় নিযুক্ত কেন্দ্রের এই বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক।

জানা গেছে, বাংলায় কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের পরিকল্পনা কিছুটা পরিবর্তন করা দরকার – এই আবেদন নির্বাচন কমিশনের কাছে বিবেক দুবের পক্ষ থেকে তুলে ধরা হলে নির্বাচন কমিশন কেন্দ্রের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষকের আবেদনকে মান্যতা দেওয়ার সাথে সাথেই রাজ্যে এসে রাজ্য পুলিশের তৈরি করা বাহিনী মোতায়েনের পরিকল্পনাকে প্রথমেই ভেঙে দিয়ে মাস্টারস্ট্রোক দিলেন বিবেক দুবে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

মূলত রাজ্য পুলিশের পরিকল্পনা অনুযায়ী তিনটি বুথ সম্বলিত ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের 8, 5 এবং 6 টি বুথের ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের 12 এবং আটটি বুথের ভোটকেন্দ্রে 16 এবং নটি বুথের ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের 20 জন করে আধাসেনা রাখার পরিকল্পনা হয়েছিল। আর রাজ্য পুলিশের এহেন ফর্মুলাকে ঠিকঠাক মান্যতা না দিয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনী উপস্থিত থাকলেই ভোটারদের মনে ভরসা বাড়বে। তা জানিয়ে যে সমস্ত বুথে বেশি কেন্দ্রীয় বাহিনী রয়েছে, সেই সমস্ত বুথ থেকে সেই কেন্দ্রীয় বাহিনী তুলে তা ছড়িয়ে দিয়ে এক নতুন ফর্মুলা তৈরি করার পক্ষে সওয়াল করেন বিবেক দুবে। আর বিবেক দুবের এহেন মন্তব্যে সমর্থন জানান নির্বাচন কমিশনও।

জানা গেছে, নতুনভাবে বাহিনী মোতায়েনের যে পরিকল্পনা হয়েছে তা হল 4 টি ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে 6 জন। 5 এবং 6 টি বুথের ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে 12 থেকে তা কিছুটা কমিয়ে আনা এবং 8 ও 9 টি বুথের ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের 16 জন জন আধাসেনা রাখার পরিকল্পনা হয়েছে।

এদিন এই প্রসঙ্গে বাংলার জন্য নিযুক্ত বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে বলেন, “কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ান দেখলেই ভোটাররা ভরসা পাচ্ছেন। তাই প্রচলিত নিয়ম ভেঙে অধিক সংখ্যক বুথে তাদের মোতায়েন করা হচ্ছে। সব বুথে বাহিনী দেওয়াই আমাদের মূল উদ্দেশ্য।”

অনেকে বলছেন, একটি মুখে অল্প সংখ্যক কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে তা বিভিন্ন বুথে ছড়িয়ে দেওয়ার যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তাতে ভোটারদের মনেও যেমন ভয়ভীতি দূর হবে, ঠিক তেমনি নির্বাচনে গণতন্ত্র প্রহসনে পরিণত হচ্ছে এরূপ কোনো অভিযোগও বিরোধীরা তুলতে পারবে না। আর বাংলার জন্য নিযুক্ত কেন্দ্রের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবের এহেন ফর্মুলা যদি ঠিকঠাক কাজ করে তাহলে তৃতীয় দফার ভোট অনেকটাই শান্তিপূর্ণ হবে বলে মত বিশেষজ্ঞ মহলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!