এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > প্রশাসনের লোক আর পুলিশকে এক করার লক্ষ্যে নয়া উদ্যোগ মুখ্যমন্ত্রীর

প্রশাসনের লোক আর পুলিশকে এক করার লক্ষ্যে নয়া উদ্যোগ মুখ্যমন্ত্রীর

গতকাল আলিপুরদুয়ার পুলিশ আয়োজিত একটি ক্রীড়া অনুষ্ঠানে একটি অভিনব দৃশ্য নজর কাড়ল সকলের। জেলার তাবড় তাবড় প্রশাসনিক কর্তা থেকে শুরু করে বিধায়ক ও সাংসদরা একইধরণের টুপি পড়ে রয়েছেন। এবং তাঁদের টুপি পড়ানোর কাজটি করছে পুলিশ।

এবং কোনোরকম গোপনীয়তা ছাড়াই জনসমক্ষেই হচ্ছে এই কাজটি। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য পুলিশের উত্তরবঙ্গের IG আনন্দ কুমার, আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের মেন্টর মোহন শর্মা,জেলা পরিষদের মহিলা সভাধিপতি শীলা দাস সরকার সহ অন্যান্য প্রশাসনের হেভিওয়েট ব্যাক্তিত্বরা। এঁরা সকলেই একইধরণের টুপি পড়েছিলেন গতকাল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

তবে এগুলো কোনো সাধারণ টুপি নয়৷ বিশেষ একধরণের পাতা দিয়ে তৈরি হয়েছে এই টুপি। স্থানীয় আদিবাসী সম্প্রদায়ের মধ্যে এই টুপির যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে বলেই জানা গিয়েছে। তাছাড়া সাদা-কালো এই টুপির যথেষ্ট জনপ্রিয়তাও রয়েছে বাজারে।

তবে জেলা পুলিশের উদ্যোগে আয়োজিত একটি ক্রীড়া অনুষ্ঠানে পুলিশ থেকে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের একইধরণে টুপি পড়ানোর আইডিয়াটা কার ছিল? এই প্রশ্নের জবাবে তৃণমূল কংগ্রেসের আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি মোহন শর্মা বলেন,মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই এই টুপি পড়েছেন তাঁরা। অন্যদিকে,মহাকুমা শাসক কৃষ্ণাভ ঘোষ বলেন,”আমরা প্রশাসনের লোক আর পুলিশ আলাদা নই। আমরা সকলেই প্রায় এক দপ্তরের। তাই এরকম টুপি পরানোর কাজ চলবে।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!