এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > পলাশীর যুদ্ধ আর শ্রীচৈতন্যদেবের ভাবধারার মিশেলে কৃষ্ণনগরের জনসভা ঝড় তুললেন অমিত শাহ

পলাশীর যুদ্ধ আর শ্রীচৈতন্যদেবের ভাবধারার মিশেলে কৃষ্ণনগরের জনসভা ঝড় তুললেন অমিত শাহ

এবার লোকসভা ভোটের মরসুমে শাসক-বিরোধী যুদ্ধে পলাশীর যুদ্ধের ছায়া এসে পড়ল। আর ইতিহাসের সেই পলাশীর যুদ্ধকে এবার রাজনৈতিক ময়দানে টেনে এনে রাজ্য রাজনীতিতে ঝড় তুলে দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। সূত্রের খবর, সোমবার কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী কল্যান চৌবের সমর্থনে গভর্নমেন্ট কলেজে একটি নির্বাচনী জনসভায় উপস্থিত হন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।

যেখানে অমিত শাহ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয়, জেলা সভাপতি মহাদেব সরকার সহ অন্যান্যরা। তবে এদিনের সভায় অনুপস্থিত থাকতে দেখা গেছে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সত্যব্রত মুখোপাধ্যায়কে।আর এদিনের এই মঞ্চে উপস্থিত হয়ে প্রথমেই পুলওয়ামা কান্ডে নিহত জওয়ান সুদীপ বিশ্বাসকে শ্রদ্ধা জানিয়ে এবারের লোকসভা নির্বাচনকে পলাশীর যুদ্ধের সঙ্গে তুলনা করে নবদ্বীপে শ্রীচৈতন্য জন্মভূমিকে মাত করে দেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

অমিত শাহ বলেন, “নবদ্বীপে শ্রীচৈতন্যের ভক্তি আন্দোলন আজ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এই নদীয়াতে পলাশীর যুদ্ধ হয়েছিল। যে যুদ্ধে নবাব সিরাজউদ্দৌলাকে বিশ্বাসঘাতকতা করে ইংরেজরা পরাজিত করে। আর পলাশীর যুদ্ধের মতো এবারের নির্বাচনই ঠিক করবে বাংলার সংস্কৃতি থাকবে নাকি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নষ্ট করবে! এই নির্বাচনই ঠিক করবে গণতন্ত্র থাকবে, কি থাকবে না! উত্তরবঙ্গ থেকে দক্ষিণবঙ্গ আমি বাংলার সর্বত্র জায়গায় গিয়েছি। সব জায়গায় একটাই স্লোগান শুনেছি মোদী, মোদী, মোদী।”

অন্যদিকে কৃষ্ণনগরের এদিনের এই সভা থেকে এনআরসি নিয়ে ফের হুংকার ছাড়েন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। তিনি বলেন, “অনুপ্রবেশদের একমাত্র তাড়াতে পারে বিজেপি। সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিল আমরা নিয়ে এসেছি। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তা রুখে দিয়েছেন। বাংলাদেশ থেকে আসা হিন্দুদের আমরা নাগরিকত্ব দেব। আপনারা নরেন্দ্র মোদিকে জিতিয়ে আনুন।” সব মিলিয়ে এবার নদীয়ার মাটিতে দাঁড়িয়ে পলাশীর যুদ্ধ ও শ্রীচৈতন্যদেবের ভাবধারার মিশেল করে গেরুয়া ঝড় তুললেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!