এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কবিতায় হিন্দু ভাবাবেগে ধাক্কা দিয়ে আসামে গিয়ে হিন্দুত্ববাদীদের তীব্র বিরোধীদের মুখে কবি শ্রীজাত

কবিতায় হিন্দু ভাবাবেগে ধাক্কা দিয়ে আসামে গিয়ে হিন্দুত্ববাদীদের তীব্র বিরোধীদের মুখে কবি শ্রীজাত

দেশজুড়ে যখন ধর্মীয় অসহিষ্ণুতার অভিযোগ তুলে যখন কেন্দ্রের বর্তমান বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে সরব হচ্ছে দেশের সমস্ত বিরোধী দলগুলি ঠিক তখনই সেই হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণের নিশানায় পড়তে দেখা গেল প্রখ্যাত কবি শ্রীজাতকে। আর যে ঘটনায় ইতিমধ্যেই তোলপাড় হয়ে উঠেছে জাতীয় রাজনীতি। কিন্তু কেন হঠাৎ আক্রমণের সম্মুখীন হতে হল এই কবিকে?

সূত্রের খবর, শনিবার অসমের শিলচরে “এসো বলি” নামে একটি সাংস্কৃতিক সংগঠনের উদ্বোধন করতে গিয়েছিলেন শ্রীজাত। জানা গেছে, শিলচরের পার্ক রোডের রিয়া প্যালেস নামে একটি হোটেলে এই অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হলে সেই অনুষ্ঠানের বেশ কিছু আগে থেকেই হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের পক্ষ থেকে কয়েকজন সমর্থক সেখানে লাগাতার হুমকি দিচ্ছিলেন বলে অভিযোগ।

এই হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের পক্ষ থেকে বেশ কয়েকজন যুবক এসে উদ্যোক্তাদের কাছে আবদার জানায় যে, তাঁরা শ্রীজাতকে কয়েকটি প্রশ্ন করবেন। আর শ্রীজাত মঞ্চে ওঠার পরই সেই যুবকরা তাঁর উদ্দেশ্যে প্রশ্ন করে যে, এই প্রখ্যাত কবি কেন তাঁর ফেসবুকে পোস্ট করা “অভিশাপ” কবিতায় “কন্ডোম পরানো থাকবে তোমার ওই ধর্মের ত্রিশূলে….’ এই লাইনটি লিখেছেন? আর যুবকদের পক্ষ থেকে এই প্রশ্ন করার পরই উত্তপ্ত চেহারা নয় গোটা এলাকা।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

উদ্যোক্তাদের সাথে সেই হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের সমর্থকদের তুমুল বচসা বেঁধে যায়। অভিযোগ, এই বিক্ষোভকারী সদস্যরা হোটেলের আলো নিভিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি হোটেলের কাচ ভেঙে দেয়। এমনকি বিক্ষোভকারীদের তরফে শ্রীজাতকে তাঁদের হাতে তুলে দিতে হবে বলেও দাবি জানানো হয়। এদিকে এহেন একটা পরিস্থিতিতে কবি শ্রীজাতকে কিভাবে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা দিয়ে বের করে আনা যায় সে জন্য বিশাল পুলিশি প্রহরায় অসম সরকারের পক্ষ থেকে সার্কিট হাউসে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে।

গোটা ঘটনায় আতঙ্কিত এই কবিকে কলকাতা থেকে ফোন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় এবং ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। পাশাপাশি শ্রীজাতকে সুষ্ঠ নিরাপত্তা দেওয়ার ব্যাপারেও অসমের প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিকে কবির কলমের উপর এবার হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের সমর্থকদের এহেন আঘাত নেমে আসায় এই ঘটনার প্রবল সমালোচনায় সরব হয়েছেন বাংলার সংস্কৃতিমহল।

এদিন এই প্রসঙ্গে কবি জয় গোস্বামী বলেন, “কবিতা লেখা ছাড়া শ্রীজাত আর কোনো অপরাধ করেনি। একজন স্বাধীন ব্যক্তি হিসেবে তাঁর মনের কথা লেখবার অধিকার আছে। এই ঘটনার নিন্দা জানানোর ভাষা নেই।” অন্যদিকে এই পুরো ঘটনাটিকে “দুর্ভাগ্যজনক ও কাপুরুষোচিত” বলে আখ্যা দেন নাট্যব্যক্তিত্ব কৌশিক সেন। সবমিলিয়ে এবার অসমে অনুষ্ঠান করতে গিয়ে হিন্দুত্ববাদীদের প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়তে হলেও বাংলার প্রখ্যাত কবি শ্রীজাতকে। বর্তমানে যে ঘটনার সমালোচনায় সরব গোটা বুদ্ধিজীবী মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!