এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > নরেন্দ্র মোদির কামাল! প্রধানমন্ত্রী জনধন যোজনায় পার ১ লক্ষ কোটি টাকা!

নরেন্দ্র মোদির কামাল! প্রধানমন্ত্রী জনধন যোজনায় পার ১ লক্ষ কোটি টাকা!

এবার বড়সড় সাফল্য পেল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্বপ্নের প্রকল্প প্রধানমন্ত্রী জনধন যোজনা। প্রধানমন্ত্রীর কুর্সিতে বসেই নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেছিলেন দেশের সব মানুষের বিশেষ করে গরিব ও পিছিয়ে পড়া মানুষের নিজস্ব ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থাকাটা জরুরি। কেননা, এরফলে সরকার সমস্ত রকমের সরকারি সুবিধা ও সাবসিডি সরাসরি গরিব মানুষের অ্যাকাউন্টে পৌঁছে দিতে পারবে। মাঝখান থেকে ‘কাটমানি’ খেতে পারবে না অসাধু লোকেরা।

আর তাই, বিপিএল মানুষের জন্য ‘জিরো ব্যালান্স’ ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলাতে তিনি জোর দেন। আর তাঁর সেই স্বপ্নের প্রকল্প প্রধানমন্ত্রী জনধন যোজনা এবার ১ ট্রিলিয়ন বা ১ লক্ষ কোটি টাকার বড়সড় ‘ফান্ড’ হয়ে গেল। সূত্রের খবর প্রধানমন্ত্রী জনধন যোজনার অন্তর্গত অ্যাকাউন্টে জমা থাকা টাকার মোট পরিমান ওই অঙ্কে পৌঁছে গেছে – যা প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নরেন্দ্র মোদির একটি বড়সড় সাফল্য বলে মনে করা হচ্ছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

কেননা, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্বপ্ন প্রথমে লেস-ক্যাশ সমাজ ও পরবর্তী কালে ক্যাশ-লেস সমাজ। দুর্নীতি রোধে যা বড়সড় পদক্ষেপ হবে। ‘প্লাস্টিক মানির’ প্রচলন হলে, ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়া যেমন বন্ধ হবে, তেমনই ‘কালা-ধন’ অসাধু লোকেদের কাছ থেকে টেনে বার করা যাবে। আর তাই, নরেন্দ্র মোদির স্বপ্নের সেই দুর্নীতিমুক্ত ভারত পাওয়ার জন্য জট বেশি সম্ভব ভারতবাসীর ব্যাঙ্কিং সিস্টেমের সঙ্গে যুক্ত হয়ে থাকাটা অত্যন্ত জরুরি।

সূত্রের খবর, গত ৩ রা জুলাই অর্থমন্ত্রকের দেওয়া সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২৮ শে অগাস্ট, ২০১৪ সালে এই প্রকল্প শুরু হওয়ার পর, প্রধানমন্ত্রী জনধন যোজনায় ৩৬.০৬ মিলিয়ন অ্যাকাউন্টে এখনও পর্যন্ত মোট ১,০০,৪৯৫.৯৪ কোটি টাকা জমা পড়েছে। তার থেকেও আসার কথা, এই সব অ্যাকাউন্টে জমা হওয়া রাশির পরিমান দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। যেহেতু, এই অ্যাকাউন্টে টাকা জমা রাখার ক্ষেত্রে ‘মিনিমাম ব্যালেন্স’ রাখার কোনো দরকার পরে না – তাই নিম্নবিত্ত মানুষের ক্ষেত্রে এই অ্যাকাউন্ট নিয়ে আগ্রহও দিন দিন বাড়ছে।

Top
error: Content is protected !!