এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বৃহত্তর জোটে মমতা ব্যানার্জির দেখানো পথেই কংগ্রেস, প্রধানমন্ত্রী পদ নিয়ে তাঁর সিদ্ধান্তেই সীলমোহর

বৃহত্তর জোটে মমতা ব্যানার্জির দেখানো পথেই কংগ্রেস, প্রধানমন্ত্রী পদ নিয়ে তাঁর সিদ্ধান্তেই সীলমোহর

সামনে লোকসভা নির্বাচন। আর 2019 এ কেন্দ্রে বিজেপি সরকারকে হঠাতে দেশে তৈরি হয়েছে বিরোধী মহাজোট। যেখানে রয়েছে কংগ্রেস, তৃণমূল কংগ্রেস থেকে সমাজবাদী পার্টি এবং বহুজন সমাজবাদী পার্টি সহ অনেক রাজনৈতিক দলই। কিন্তু এই বিরোধী মহাজোট যদি কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসে তাহলে কে হবে তার প্রধানমন্ত্রী? জাতীয় রাজনীতিতে যখন এই প্রশ্নই সর্বত্র ঘোরাফেরা করছে ঠিক তখনই এই ব্যাপারে মুখ খুললেন দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর তথা প্রবীণ কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরম। আর এই প্রবীণ কংগ্রেস নেতার কথাতেও জয় হল বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরই।

কিন্তু ঠিক ঠিক এমন কি বললেন এই প্রবীণ কংগ্রেস নেতা? সূত্রের খবর, একটি সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থার তামিল টিভি চ্যানেলের এক সাক্ষাৎকারে উপস্থিত ছিলেন এই পি চিদাম্বরম। আর সেখানেই তিনি এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, “2019 এ কেন্দ্রের মসনদ থেকে বিজেপিকে ক্ষমতাচ্যুত করতেই এই মহাজোট করার চেষ্টা চলছে। আর এই মহাজোট ক্ষমতায় এলে সাধারণ মানুষের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করবে না, কর সন্ত্রাস করবে না, শুধুমাত্র মহিলাদের সুরক্ষা এবং কৃষকদের স্বার্থ রক্ষা করবে।” কিন্তু বিতর্কের খাতিরে না হয় এই মহাজোট ক্ষমতায় এলো তাহলে তার প্রধানমন্ত্রী কে হবেন?

এদিন এই প্রশ্নের জবাবে কৌশলী কংগ্রেস নেতা চিদাম্বরাম বলেন, “আমরা একটি জোট করতে চাইছি। কে প্রধানমন্ত্রী হবেন! ভোটের পরে তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন জোট সঙ্গীরাই।” আর এই খানেই রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছে অতীতে বিরোধী মহা জোট গড়ার সময় তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, “বিজেপিকে সরানোই মূল লক্ষ্য হওয়া উচিত। ভোটের পরে ফেডারেল ফন্টের শরিকরাই প্রধানমন্ত্রী ঠিক করবে।” আর এদিন নিজের কথায় সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিবৃতির পুনরাবৃত্তি শোনালেন দেশের এই প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো  করুন এই লিঙ্কেখবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক

পাশাপাশি এদিন এই বিরোধী জোট ভাঙার ব্যাপারে বিজেপির ষড়যন্ত্রের কথাও উল্লেখ করেন পি চিদাম্বরম। রাজনৈতিক মহলের মতে, এদিন এক ঢিলে দুই পাখি মারলেন এই প্রবীণ কংগ্রেস নেতা। একদিকে জোট ভাঙার ব্যাপারে বিজেপি যেমন সবসময় এই বিরোধী মহাজোটের কে প্রধানমন্ত্রী হবেন বলে বিরোধী মহাজোটে ভাঙন ধরানোর চেষ্টা করত ঠিক তেমনি এই প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নিয়ে মহাজোটের ওপর অসন্তুষ্ট হতেন তাদেরই অনেক শরিক। তাই সেই সব বিতর্কে ইতি টেনে আপাতত বিজেপিকে সরানোই পাখির চোখ করে ভোটের পরই বিরোধী মহাজোটের প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী ঠিক করার ব্যাপারে সওয়াল করলেন তিনি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!