এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে ‘হাতের মুঠোয়’ নিয়ে এলেন কি প্রধানমন্ত্রী? নতুন গভর্নরের এই কথায় বাড়ছে জল্পনা

রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে ‘হাতের মুঠোয়’ নিয়ে এলেন কি প্রধানমন্ত্রী? নতুন গভর্নরের এই কথায় বাড়ছে জল্পনা


এই মুহূর্তে জাতীয় রাজনীতির অন্দরে যে জল্পনাটি মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে সেটি হল-রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে কি করায়ত্ত্ব করে ফেললন মোদী? এবং এই জল্পনার সূত্রপাত নতুন গর্ভনরের কথায়। কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনা করেই চলবে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক,দায়িত্ব নিয়ে এমন কথাই জানালেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নয়া গর্ভনর শক্তিকান্ত দাস।

সোমবার দিল্লির একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তিনি। সেখানেই তিনি বক্তব্যে জানালেন,’আরবিআই এমন কোনও পরিস্থিতি তৈরি করবে না, যেখানে নগদের জোগান দিতে গিয়ে উলু বনে মুক্ত ছড়ানো হয়ে যায়।’ যে পথের বিরুদ্ধে যেতে গিয়ে গর্ভনর পদ থেকে ইস্তফা দিতে হয়েছিল প্রাক্তনকে,নয়া গর্ভনর কি সেই পথেই হাঁটছেন? এই প্রশ্নকে কেন্দ্র করে চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিকমহলে।

নগধ সঙ্কটে ভুগছে এমন বেশ কিছু আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে লোকসভা ভোটের মুখে চাঙ্গা করে তুলতে আরবিআইয়ের সাহায্য চেয়েছিল কেন্দ্র। কেন্দ্রের দাবী ছিল,এই আর্থিক সংকটে ভুক্তভোগী প্রতিষ্ঠানগুলোকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কে নিজস্ব কোষাগারের অর্থ দিয়ে সহায়তা করবে। কিন্তু কেন্দ্রের এই আবেদন নিয়ে প্রথম থেকেই আপত্তি জানায় প্রাক্তন আরবিআই প্রধান।

এমনকি এই ইস্যু নিয়ে বেশ কিছুদিন কেন্দ্রের সঙ্গে আরবিআইয়ের মন কষাকষি চলে। পরে মোদী সরকারের আর্জি খারিজও করে দেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কেট প্রাক্তন গর্ভনর উর্জিত প্যাটেল।

পাশাপাশি অনাদায়ী ঋণে জর্জরিত রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের ঋণনীতি শিথিল করার কেন্দ্রের আরও একটি দাবিতেও আপত্তি জানান উর্জিত। এর ফলে কেন্দ্র এবং শীর্ষ ব্যাঙ্কের চাপানউতোরের ফলে ইস্তফা দিয়ে দেন উর্জিত। ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে মেয়াদ শেষের আগে পদ থেকে সরে গিয়ে শেষ পর্যন্ত নিজের সিদ্ধান্তেই অটল থাকলেন তিনি।

 

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

উর্জিত প্যাটেলের ইস্তফা দানের পর আরবিআইয়ের নয়া গভর্নর পদের দায়িত্বে আসেন তামিলনাড়ুর ক্যাডারের আইপিএস অফিসার শক্তিকান্ত দাস। মোদী সরকারের ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত শক্তিকান্ত দাস নোটবন্দির সিদ্ধান্তের সময় বিজেপি সরকারের নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের স্বপক্ষে সওয়াল করেছিলেন। তারপর আরবিআইয়ের নতুন গর্ভনরের পদে বসে প্রথম থেকেই বিজেপি সরকারের নীতির তরফদারি করতে দেখা যায় তাকে।

কেন্দ্র সরকারের প্রয়োজনে যোগসূত্র হিসাবে যাতে স্বশাসিত প্রতিষ্ঠান কাজ করতে পারে তার জন্যে ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি সংস্থাকে ২৫ কোটি টাকা পর্যন্ত যে ঋণনীতি রয়েছে তা ঢেলে সাজানোর অনুমতি দিয়েছেন শক্তিকান্ত। শুধুতাই নয়,তাদের দীর্ঘদিনের সমস্যা খতিয়ে দেখতে একটি কমিটি তৈরি করার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে। যার দায়িত্ব দেওয়া হবে শেয়ার বাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা সেবির প্রাক্তন চেয়ারম্যান ইউ কে সিনহাকে।

গতকাল রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গর্ভনর বলেন,ব্যাঙ্কের পাশাপাশি নগদ সমস্যায় ভুক্তভোগী আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে বৈঠকে বসবেন তিনি। সেই সব প্রতিষ্ঠানগুলোর নগ সমস্যার সমাধান করার প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!