এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > চাপের মুখে কি কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ড নিয়ে বড়সড় সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে কেন্দ্র সরকার?

চাপের মুখে কি কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ড নিয়ে বড়সড় সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে কেন্দ্র সরকার?

এবার প্রভিডেন্ট ফান্ডে নাম নথিভুক্তিকরণের সময় আধার বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত থেকে কি পিছু হটছে কেন্দ্রীয় সরকার?  সম্প্রতি শ্রমমন্ত্রক তরফ থেকে পাওয়া একটি খবরে দেশজুড়ে তীব্র জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে। সূত্রের খবর, অসম, মেঘালয় এবং নাগাল্যান্ডে এই আধার নম্বর ছাড়াই যাতে শ্রমিক-কর্মচারীরা ইফিএফে নাম নথিভুক্ত করতে পারেন, সেই ব্যাপারে এই রাজ্য সরকারকে একটি নির্দেশনামাও পাঠিয়েছে কেন্দ্র।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, শ্রমমন্ত্রকের তরফে এই সামাজিক সুরক্ষা ব্যবস্থা কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ডে নাম তোলার জন্য দেশের সরকারি এবং বেসরকারি সংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিক-কর্মীদের আধার নম্বর থাকা আগেই বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। কিন্তু এই নির্দেশের পর হঠাৎ, অসম, মেঘালয় এবং নাগাল্যান্ডে আগামী ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত আধার নম্বর ছাড়াই ইপিএফে নাম নথিভুক্তির সিদ্ধান্তকে বলবৎ রাখায় অনেকেই মনে করছেন যে, এটি প্রথমে এই তিন রাজ্য দিয়ে শুরু হল পরে গোটা দেশে তা কার্যকর হবে। তবে অনেকেরই মনে এনিয়ে প্রশ্নও তৈরি হয়েছে যে কেন এই তিনটি রাজ্যে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হল?

জানা গেছে, ইপিএফের ক্ষেত্রে আধার নম্বর বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্তের পরই বিভিন্ন  রাজ্যে কত মানুষের আধার কার্ড রয়েছে, তা নিয়ে একটি সমীক্ষা চালানো হয়েছিল কেন্দ্রের তরফে। আর সেই সমীক্ষাতেই এই তিন রাজ্যে আধার কার্ড এর পরিমাণ কম হিসাবে দেখা যায়। যার ফলে মূলত এই তিন রাজ্যে আধার ছাড়াই ইপিএফে নাম নথিভুক্তিকরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে কেন্দ্রের তরফে এহেন যুক্তি খাড়া করলেও এর পিছনে লোকসভা নির্বাচনকেই মূল কারন হিসাবে দেখছেন অনেকে।

কেননা এবারের লোকসভা ভোটে কর্মসংস্থান ইস্যুতে বিজেপিকে চাপে ফেলতে পারে বিরোধীরা। বিরোধীদের অভিযোগ, বছরে দুকোটি চাকরির যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল মোদী সরকার, তা পূরণে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছেন তাঁরা। আর বিরোধীদের এই অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে ইপিএফও’র আওতায় থাকা শ্রমিক-কর্মচারীর সংখ্যাকেই হাতিয়ার করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সরকারের যুক্তি, ইপিএফে যত বেশি গ্রাহক, দেশে তত বেশি কর্মসংস্থান।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

ফলে এখন সেই ইপিএফে গ্রাহকদের আধার নম্বর না থাকার জন্য যদি তারা সেই ইপিএফও’র আওতায় না আসতে পারেন, তাহলে ফের বিরোধীদের তোপের মুখে পড়তে পারে সরকার। আর তাই, এই ইপিএফে নাম নথিভুক্তিকরণের ক্ষেত্রে আধার নম্বর বাধ্যতামূলক করার নিয়ম কিছুটা শিথিল করল কেন্দ্রীয় সরকার। সব মিলিয়ে এবার লোকসভা ভোটের দিকে তাকিয়ে মোদীর স্বপ্নের আধার প্রভিডেন্ট ফান্ডের কর্মচারীদের আওতা থেকে বাদ যেতে চলেছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!