এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > পেনশন নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত শীঘ্রই? অন্য রাজ্যের নিয়ম মানতে হবে নবান্নকেও?

পেনশন নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত শীঘ্রই? অন্য রাজ্যের নিয়ম মানতে হবে নবান্নকেও?

পেনশন সংক্রান্ত সংশোধনের জন্যে আগামী ১৬ ই জুলাই এন কে সিংহের নেতৃত্বে   কলকাতা সফরে আসছে পঞ্চদশ অর্থ কমিশন। বিশেষ সূত্রে পাওয়া খবর অনুসারে, পেনশন ক্ষেত্রে সংস্কারের জন্য রাজ্য সরকার কী কী পদক্ষেপ করেছে সেই বিষয়ে রাজ্য সফরের আগেই আগাম অবগত হতে চেয়েছে কমিশন। কমিশন মূলত সওয়াল করেছে রাজ্য সরকারের পেনশন বাবদ ধারাবাহিক ব্যয়ের বিষয়ে। এমনকি কমিশনের পক্ষ থেকে ন্যাশনাল পেনশন সিস্টেম(এনপিএস)-এ রাজ্য কর্মীদের জন্য চালু করা হয়নি কেন সেই বিষয়েও আলোকপাত করা হয়েছে। কমিশনের এই সব প্রশ্নের প্রেক্ষিতে স্বভাবতই অর্থ দফতরের একাংশ মনে করছে যে, পঞ্চদশ অর্থ কমিশন হয়তো একপ্রকার বাধ্যতামূলকভাবেই সরকারি কর্মীদের পেনশনের দায়িত্ব আর সরকারের কাঁধে নেবেনা।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কেন্দ্রীয় সরকার এবং অন্যান্য রাজ্য সরকারগুলি যে ভাবে এনপিএস তহবিলে কর্মীদের টাকা কেটে নিয়ে পেনশনের জন্য গচ্ছিত রাখছে, পশ্চিমবঙ্গকেও একই পথে যেতে বাধ্য করবে।এই প্রসঙ্গে অর্থ দফতরের এক আধিকারিক বললেন,  ”অর্থ কমিশনের মূল বিবেচ্যই হল রাজ্যগুলির আর্থিক দায় কমানো। এ রাজ্যে এখনও পেনশনের ভার সরকারই গ্রহণ করে। বছরে এ জন্য ১৬ হাজার কোটি টাকা খরচ হয়। কমিশনকে তা-ই জানানো হবে।” প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০০৪ সালের পর থেকে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের পেনশনের টাকা এনপিএসেই জমা হয়। এর ওপরে সরকারী কোনো নিয়ন্ত্রন নেই। এই পেনশনের দায়িত্ব ভার থেকে মুক্তি পেতে ২৭ টি রাজ্য এই তহবিলে যোগ দিয়েছে। এখনও যোগদান করেনি এমন রাজ্য গুলির মধ্যে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা, দিল্লী প্রভৃতি। জানা যাচ্ছে এরমধ্যে এনপিএসের তহবিলে জমা পড়েছে ২ লক্ষ ৩৮ হাজার কোটি টাকা। পশ্চিমবঙ্গে কী এখন সরকারের আর্থিক দুরবস্থা ঘোচাতে ১০ লক্ষ কর্মীর পেনশনএর প্রদানে অপারক হয়ে এনপিএসে চলে যাবে ? এই প্রসঙ্গে নবান্নের এক আধিকারিক বললেন, ”এ ব্যাপারে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।” যদিও অর্থ কর্তাদের বক্তব্য,”কমিশনকে বলা হবে বেতন বৃদ্ধির বাড়তি টাকা দিক কেন্দ্র। একা রাজ্যের পক্ষে তা বহন করা অসম্ভব।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!