এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের ‘নৈতিক অধঃপতন’ ধরিয়ে দিলেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জি

বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের ‘নৈতিক অধঃপতন’ ধরিয়ে দিলেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জি

বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে আবার ও সমালোচনায় মাতলেন তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সম্প্রতি বিজেপির দলীয় প্রচারকার্যে জেলা সফরকালীন জনসভায় এলাকার সাধারণ মানুষকে প্রলোভন দেখিয়ে বলেন আসন্ন নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থীদের জয়যুক্ত করতে পারলে জেলা পরিষদের তরফ থেকে ঐ নির্বাচনী অঞ্চলের তরুণ এবং তরুণীদের হাতে স্মার্টফোন তুলে দেওয়া হবে। এদিন এই নিয়ে পার্থ বাবু তাঁর বক্তব্যে জানালেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের দলীয় মঞ্চ থেকে প্রকাশ্যে সংশ্লিষ্ট এলাকার সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে প্রলোভন সূচক মন্তব্য আদতে নির্বাচনী ধাপ্পা। খুব স্বাভাবিকভাবেই এরফলে নির্বাচনী বিধিভঙ্গ হচ্ছে এবং তাঁর নৈতিকতা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

পার্থ চট্টোপাধ্যায় এদিন মুকুল রায়কে ফের ‘চাটনী-দাদু’ বলে অ্যাখ্যায়িত করে বলেন,  “নির্বাচনের আগে সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া চাটনিবাবু বিভিন্ন জায়গা মিটিং করে বলছেন ক্ষমতায় এলে স্মার্টফোন দেবেন। এটা একটা অদ্ভুতরকমের বিধিভঙ্গ। নৈতিকতা বিসর্জন দিয়ে বিজেপি বিধিভঙ্গ করছেন শুধু ভোটে জেতার জন্য।” এরপরে তিনি মুকুল রায়কে কার্যত হুমকি দিয়ে বলেন, “বাংলার মানুষ দরিদ্র হতে পারে, কিন্তু দয়ার পাত্র নন। কোনও অবস্থাতেই তাঁরা প্রলোভনের কাছে আত্মসমর্পণ করবেন না। এটা একটা নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি, ধাপ্পাবাজি ছাড়া আর কিছুই নয়। বিজেপি নেতারা ধর্মের নামে জুজু দেখাচ্ছে, প্রচুর পুস্তিকা বিলি করছে। সাম্প্রদায়িকতার বিষ ছড়াচ্ছে। নির্বাচন কমিশনকে আমরা এটাও জানিয়েছি। আশা করি নির্বাচন কমিশন যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।”  অন্যদিকে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা রাহুল সিনহা’র করা অভিযোগের জবাবে পার্থ বাবু বললেন, ” নির্বাচন কমিশনকে ব্যবহার করার জন্য যা নয় তাই করতে চাইছে বিজেপি। এখন আবার বিজেপির নেতা বলছেন নির্বাচন কমিশনারকে মৃত্যুভয় দেখাচ্ছে তৃণমূল। এই ধরনের কথা হঠাত্‍ বলার কতটা সত্যতা আছে, তা আমি জানি না। তবে এই কথা শোনার পর নির্বাচন কমিশনারের অন্তত প্রতিবাদ করা উচিত বলে আমি মনে করি।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!