এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কোনটা আসলে ‘পার্টি-লাইন’, বৃন্দ-সেলিমের বাকযুদ্ধে বেনজির মতানৈক্য বামফ্রন্টে

কোনটা আসলে ‘পার্টি-লাইন’, বৃন্দ-সেলিমের বাকযুদ্ধে বেনজির মতানৈক্য বামফ্রন্টে

‘পার্টি-লাইন’ নিয়ে পলিটব্যুরোর নেত্রী বৃন্দা কারাট ও পলিটব্যুরোর আরেক নেতা মহম্মদ সেলিমের বাকযুদ্ধে নজীরবিহীন মতানৈক্য বামফ্রন্টে।বৃন্দা কারাট মিডিয়া পয়েন্টে এসে দাবী করেন যে পার্টি লাইনে কোনো পরিবর্তন হয়নি এছাড়াও সীতারাম ইয়েচুরির ‘সংখ্যালঘু মত’ গ্রহণ বা বর্জন করা হয়নি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এ খবর পার্টি কংগ্রেসের মঞ্চে এলেই মহম্মদ সেলিম জানিয়ে দেন যে,দলের রাজনৈতিক প্রস্তাবে বড়সড়ো পরিবর্তন হয়েছে।ইয়েচুরির সাথে কারাট দম্পতির মতে যে পার্থক্য থাকবে তা বামশিবিরে নতুন কিছু নয়।তবে আগের রাতে পার্টি অফিসে পাশ হওয়া প্রস্তাবই পরেরদিন দুপুরে ওই দলেরই একজন ‘হেভিওয়েট’ নেতা অস্বীকার করবেন এবং পরে অন্য এক নেতাকে পাঠিয়ে সেই দাবী খারিজ করা হবে-এমন ঘটনা সত্যিই দূর্লভ।
রাজনৈতিক সূত্রের খবর,দলের এক বড় অংশ বলছে যে দীর্ঘদিন ধরে আধিপত্যে ভাঙন ধরে আপসে যেতে বাধ্য হওয়ায় কারাট শিবিরের দশা হয়েছে ভাঙব তবু মচকাবো না এর মতো।গতকাল রাত থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় দলের একাংশের প্রচার এবখ আজ বৃন্দার বক্তব্যে সেই মনোভাবই প্রকাশ্যে এসেছে।
উক্ত বিষয় নিয়ে বৃন্দা কারাটের কাছে প্রশ্ন উঠতেই তিনি বলেছেন, ”সংখ্যালঘু (ইয়েচুরির) মত গৃহীত হয়নি, খারিজও হয়নি। পারস্পরিক সম্মতির ভিত্তিতে কিছু অনুচ্ছেদ নতুন করে লেখা হয়েছে।” পার্টি কংগ্রেসের রাজনৈতিক ও সাংগঠনিক রিপোর্টে উল্লেখ আছে, ২০১৬-র বিধানসভা ভোটে বাংলার সিপিএমের কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা দলের লাইনের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ ছিল না। বাংলার জীবেশ সরকারেরা ভিতরে ওই মতের পাল্টা যুক্তি দিচ্ছেন। আর বাইরে বৃন্দা বলেছেন, ”বাংলা ভুল করেছিল। আবার ওই কাজ করতে গেলেও অনুমোদিত হবে না!” পক্ষান্তরে সেলিম স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন, ”কিছু অনুচ্ছেদ বাদ দেওয়া হয়েছে, কিছু অংশ যুক্ত করা হয়েছে। সংশোধনীতে সেটা পরিষ্কার করে লেখা আছে। এটাই তো পরিবর্তন!” নির্বাচনী কৌশল ভোটের সময়েই ঠিক হবে বলে দরজা খোলাও রেখেছেন সেলিম।
আগে হলে বৃন্দা খোলা মাঠ পেয়ে যেতেন। এ বার পাল্টা ব্যাট হাতে পাঠানো হল সেলিমকে। ইঙ্গিত স্পষ্ট- অধিনায়ক ইয়েচুরি দলের কর্তৃত্ব হাতে নিচ্ছেন!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!