এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ২১ শে জুলাই-এর মহা জনসমাবেশ-এ কারা কারা নতুন আসছেন? জোর জল্পনা পার্থর উত্তরে

২১ শে জুলাই-এর মহা জনসমাবেশ-এ কারা কারা নতুন আসছেন? জোর জল্পনা পার্থর উত্তরে

হাতে মাত্র দুদিন ,তৃণমূল কংগ্রেসের ২১ শে জুলাই-এর মহা জনসমাবেশ-এর জন্য চলছে জোরদার প্রস্তুতি। তাই তড়িঘড়ি করে বার্ষিক স্মরণসভার মঞ্চ দেখতে আসেন এদিন পার্থবাবু। সঙ্গে ছিলেন দলের সাংসদ দোলা সেন এবং সর্বভারতীয় সভাপতু সুব্রত বক্সি। মঞ্চ দেখতে এসে মিডিয়ার সমানে তিনি জানান যে এবারের ২১ শে জুলাই-এ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলকে নতুন দিশা দেবেন। এই দিশায় ছড়িয়ে দেওয়া হবে জনসাধারণের মাঝে।

তিনি যখন ২১ শেজুলাই-এর মঞ্চে বক্তব্য রাখবেন,তখন দলের তরফ থেকেও আশা করা হবে আগামী দিনের জন্যে নতুন কোনো আশার কথা বলবেন তিনি। এরপর সংবাদমাধ্যমের তরফ থেকে পাল্টা প্রশ্ন আসে,ওদিন মঞ্চে নতুন কোনো নেতৃত্বের দেখা মিলবে কিনা। এককথায় জানতে চাওয়া হয়েছিল কে কে আসছেন অন্যদল ছেড়ে তৃণমূলে। এ প্রসঙ্গে তিনি রহস্য বাড়িয়ে শুধু অপেক্ষা করার পরামর্শ দেন। তিনি জানান, “অপেক্ষা করলেই সব জানতে পারবেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি যাদের আস্থা আছে, তৃণমূলের প্রতি যাদের বিশ্বাস রয়েছে, এই সাতবছরের সরকারের উন্নয়নের প্রতি যাদের দরদ আছে তারা সবাই তৃণমূলের পতাকার সামনে সমবেত হবে। যারা দূরে আছে তারাও কাছে আসবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাজে অনুপ্রাণিত হয়ে অনেকেই আসবে এখানে। আর ৪৮ ঘণ্টা পর সবাই দেখতে পাবে।”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এছাড়া এদিন তিনি মঞ্চ ভালোভাবে তদারক করার পর আরো জানালেন, ১৯৯৩ সালের ২১ শে জুলাই-এর আন্দোলনে যারা শহীদ হআর এইসব বেলি জল্পনা বাড়ালেন তিনি।কেননা হেভিওয়েট নেতা নেত্রীরা যে যোগ দিতে যাচ্ছেন তা তো স্পষ্ট। আর তাদের নাম সামনে না এনে ধামাকা দিতে চাইছেন ও স্পষ্ট। কয়েকদিন ধরেই নানা নাম ভাসছে। তালিকায় আছেন বিজেপি,কংগ্রেস ,এবং সিপিআইএম এর ও বেশ কিছু হেভিওয়েট নেতা নেত্রীর নাম। তবে কারা কারা সত্যিই আসছেন তা নিয়ে মুখ না খুলে কিন্তু জল্পনা বাড়ালেন পার্থ। এখন শুধুই অপেক্ষা ২১ শে জুলাই এর।  এদিন তিনি মঞ্চ ভালোভাবে তদারক করার পর আরো জানালেন, ১৯৯৩ সালের ২১শে জুলাই-এর আন্দোলনে যারা শহীদ হয়েছেন,তাঁরা সকলে তৃণমূলের কর্মী না হলেও তাঁদের জন্যেই এই স্মরণসভা।

আর এবছর এই অনুষ্ঠানের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে তৃণমূল নেতৃত্বদের মধ্যে উদ্দীপনা আরো বেশি বলেই জানালেন মহাসচিব। উল্লেখ্য,দুদিন আগেই মোদীজির জনসভায় প্যান্ডেল আচমকাই ভেঙে পড়ার জেরে আহত হয়েছিলেন ৯০ জনেরও বেশি মানুষ। সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে ফের না হয়,তাই দফায় দফায় মঞ্চ তৈরির কাজ খতিয়ে দেখে যাচ্ছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!