এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > করোনা মোকাবিলায় দলনেত্রীর দেখানো পথেই হাঁটলেন শিক্ষামন্ত্রী, জেনে নিন বিস্তারিত!

করোনা মোকাবিলায় দলনেত্রীর দেখানো পথেই হাঁটলেন শিক্ষামন্ত্রী, জেনে নিন বিস্তারিত!


করোনা ভাইরাসকে আটকাতে প্রথম থেকেই সক্রিয় ভূমিকায় দেখা গেছে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে‌। দলমত নির্বিশেষে সকলেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের করোনা ভাইরাসকে আটাকানোর জন্য যে উদ্যোগ, তার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। ভোটের রাজনীতি বা অন্য সময় বাম, বিজেপি, কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিভিন্ন নীতি নিয়ে প্রশ্ন করা হলেও, করোনা ভাইরাসকে আটকাতে তিনি যে পদক্ষেপ নিয়েছেন, তার প্রশংসা না করে পারছেন না কেউ।

ইতিমধ্যেই রাজ্য লকডাউন হয়ে যাওয়া সত্ত্বেও, নিজের জীবন বিপন্ন করে রাস্তায় নামতে দেখা গেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। যেখানে সবজির বাজার থেকে শুরু করে হাসপাতালে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা কেমন চলছে, তার তদারকি করেছেন তিনি। আর এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেখানো পথেই হাঁটলেন তৃণমূল মহাসচিব শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। জানা গেছে, নিজের বিধানসভা কেন্দ্র বেহালার বিভিন্ন জায়গায় এদিন ঘুরতে দেখা গেল তাকে।

কিন্তু লকডাউনের জন্য তো বাড়ি থেকে সকলকে বের হতে মানা করা হয়েছে, সেখানে তিনি কেন এভাবে বের হলেন! এদিন এই প্রসঙ্গে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “আমাদের প্রিয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সকলকে রক্ষা করার লক্ষ্যে কাজ করে চলেছেন, এমনকি নবান্ন থেকে প্রতিদিন বিভিন্ন ধরনের নির্দেশ এবং সাজেশন আমাদের কাছে আসছে, তা এককথায় অভূতপূর্ব। আমি নিজে বেহালা অঞ্চলে ঘুরলাম।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তিনি আরও জানান, “আমার নিজের বিধানসভা কেন্দ্রে ঘুরেছি। মানুষের কতটা প্রয়োজন জেনেছি। বিধায়ক হিসেবে আমার যা করণীয়, এমনকি কাউন্সিলরদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের সঙ্গে নিয়ে আমরা এই যুদ্ধে মানুষের জন্য, মানুষকে সুস্থ রাখার জন্য সবরকম ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।” এদিকে এদিন রাজ্যের স্বাস্থ্যকর্মী এবং চিকিৎসকদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানাতে দেখা যায় তৃণমূল মহাসচিব তথা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, “আমি অভিভূত সাফাই কর্মীদের কাজে, পুলিশ প্রশাসনের কাজ এবং হাসপাতালে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মী, নার্স যেভাবে দায়িত্ব সামলাচ্ছেন, তা এক কথায় অতুলনীয়। আমি তাদের কৃতজ্ঞতা জানাই, অভিনন্দন জানাই, যারা এই দুঃসময়ে তারা নিজেদের জীবনকে তুচ্ছ করে মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। চিন্তিত হবেন না। আতঙ্কিত হবেন না। সতর্ক থাকুন। বাড়িতে থাকুন। সুস্থ থাকুন।”

তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আপনাদের পাশে আছে। আমরা সবাই আপনাদের পাশে আছি। ভালো থাকুন। ঘরে থাকবেন।” বিশেষজ্ঞরা বলছেন, একমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দেখা গেছে, নিজের জীবন বিপন্ন করে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে রাস্তায় নামতে। সেদিক থেকে তৃণমূলের আর কাউকে এভাবে রাস্তায় নামতে দেখা যায়নি। আর এবার সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পথ অনুসরণ করে দুর্দিনে মানুষের পাশে দাঁড়াতে পার্থ চট্টোপাধ্যায় যে উদ্যোগ নিলেন, তাকে স্বাগত জানাচ্ছেন প্রত্যেকেই।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!