এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > শিক্ষাক্ষেত্রে চাকরি দিতে না পারলে প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার নিদান শিক্ষামন্ত্রীর

শিক্ষাক্ষেত্রে চাকরি দিতে না পারলে প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার নিদান শিক্ষামন্ত্রীর

রাজ্যে অ্যাসোসিয়েশন অফ প্রফেশনাল অ্যাকাডেমিক ইন্সটিটিউশন (এপিএআই) আয়োজিত তথ্য-প্রযুক্তি ইন্সটিটিউটগুলির প্রদর্শনী উদ্বোধন করলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে শিক্ষামন্ত্রী কোনো রাখঢাক না করেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির উদ্দেশ্যে বললেন, ”যাদের প্লেসমেন্ট দেওয়ার ক্ষমতা নেই, তাদের বন্ধ হয়ে যাওয়া উচিত।” এবং ঐসকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে পরামর্শ দিয়ে বললেন, ”যারা প্লেসমেন্ট করতে পারছেন না। তারা চার পাঁচটা শাখা না রেখে একটা দু’টো শাখা সুন্দরভাবে রাখলে বোধহয় ভালো হয়।” এদিনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুত্‍ ও অপ্রচলিত শক্তি উত্‍সের মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, মৌলানা আবুল কালাম আজাদ ইউনিভার্সিটি অফ টেকনলজির উপাচার্য অধ্যাপক সৈকত মিত্র, আইআইইএসটি শিবপুরের প্রাক্তণ ডাইরেক্টর অধ্যাপক অজয় কুমার,পশ্চিমবঙ্গ জয়েন্ট এগজামিনেশন বোর্ডের চেয়্যারম্যান মলয়েন্দু সাহা সহ বহু বিশিষ্ঠ ব্যক্তিবর্গ।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এদিন নিজের ভাষণে শিক্ষামন্ত্রী জানালেন প্লেসমেন্ট-এর বিষয়টিতে প্রত্যক্ষ সরকারী হস্তক্ষেপ না থাকলেও বিষয়টি সরকারের নজরাধীন অবশ্যই থাকবে। এরপরে তিনি বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে নিশানা করে বললেন, ”ছাড়ব মানে এই নয় লাটাইটাও তাদের হাতে দিয়ে দেব। সেটা আমাদের হাতেই থাকবে।” এই অনুষ্ঠাণে অংশগ্রহণকারী ২৪১ টি ইন্সটিটিউটকে তিনি স্পষ্টতই জানালেন যে প্রতি বছরে গড়ে সেখান থেকে ২০০০ শিক্ষার্থী উত্তীর্ন হলে এবং তার মধ্যে সকলে কর্ম সংস্থানের সুযোগ না পেয়ে যদি উত্তীর্ন শিক্ষার্থীর অনুপাতে মাত্র ২০ জন কর্ম সংস্থান পায় সেটা কখনই সমর্থন যোগ্য বিষয় হতে পারেনা। উল্লেখ্য কর্মসংস্থানের বিষয়ে সঠিক তথ্য দিয়ে সাহায্য করার জন্যে সম্প্রতি মৌলানা আবুল কালাম আজাদ ইউনিভার্সিটি অফ ইন্সটিটিউটকে অন্যন্য বাজার চলতি জব পোর্টালগুলির অনুকরণে কটি সাইট তৈরী করলে বলা হয়েছিল। সেই পরিকল্পনা অনুয়ারী আগামী ১৮ ই জুন macoutcentralplace.com নামের সাইটটি লঞ্চ করা হবে বলে এদিন শিক্ষামন্ত্রী জানালেন। আশা করা যায় এই সাইট টি বহু কর্ম প্রার্থীকে আশার আলো দেখাবে। তবে শুধুমাত্র কর্মসংস্থান নয় যোগ্য প্রার্থীদের বৃত্তি প্রদানের বিষয়টিও সরকারী নজরদারীর আওতায় আসছে শিক্ষামন্ত্রীর এদিনের কথা প্রসঙ্গে জানতে পারা গেলো। তিনি বললেন, ”যেসকল মেধাবী ছাত্ররা অর্থে অভাবে পড়তে পারেন না। তাদের একটা অংশকে সুযোগ দেওয়া হয়। কিন্তু, কোন ইন্সটিটিউট ঠিক কতটা অংশকে এই সুবিধা দিচ্ছে তা জানি না। তাই আমরা ঠিক করেছি, এই বছর আমাদের দফতর থেকে কেন্দ্রীয়ভাবে এই খবরাখবর নেব।” এছাড়াও পার্থ বাবু এদিন জানালেন উচ্চ শিক্ষা দফতর থেকে মেধাবি ছাত্রদের আইএএস ও ডব্লুবিসিএস-এর প্রস্তুতির জন্য একটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র চালু করা হবে। সবশেষে বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির স্টুডেন্ট কাউন্সেলিং প্রসঙ্গে তিনি বললেন, ”জোর করে কাউকে কোনও বিষয় দেবেন না।” অর্থাৎ, তাঁর মতে যে ছাত্র যে বিষয় নিয়ে পড়তে ইচ্ছুক তাকে সেই বিষয় পড়তে দেওায়া উচিত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!