এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বিভাজনের রাজনীতির ঠাঁই নেই বাংলায় – হেভিওয়েট বিজেপি মন্ত্রীকে স্মরণ করালেন শিক্ষামন্ত্রী

বিভাজনের রাজনীতির ঠাঁই নেই বাংলায় – হেভিওয়েট বিজেপি মন্ত্রীকে স্মরণ করালেন শিক্ষামন্ত্রী

ফের লোকসভা ভোটের আগে প্রবল দ্বৈরথ শুরু হল রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল এবং কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির মধ্যে। বস্তুত এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলাকেই পাখির চোখ করেছেন কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহরা।

বারে বারে বাংলাতে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূল সরকারের প্রতি হুঙ্কারও ছেড়েছেন তারা। কিন্তু এই সব হুঙ্কার বাংলায় পদ্ম ফোঁটা তো দূরঅস্ত, পদ্মের কুঁড়ি টুকুও ফুটবে না বলে ঘাসফুল শিবিরের পক্ষে থেকে গেরুয়া শিবিরকে দেওয়া হয়েছে ক্রমাগত খোঁচা। তবুও দমেননি রাজ্য বিজেপির মুকুল রায়, দিলীপ ঘোষরা। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য করে শিরোনামে এসছে মুরলীধর লেন।

এবার ফের লোকসভা ভোটের আগে বিতর্ক বাড়ালেন কেন্দ্রের বিজেপি প্রতিমন্ত্রী গিরিরাজ সিং। সূত্রের খবর, গতকাল অযোধ্যার জমি মামলার শুনানি পর্বে সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে তা পিছিয়ে দেওয়া হয়। আর এতেই প্রবল খাপ্পা হয়ে ওঠেন বিজেপির এই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। হিন্দুদের ধৈর্যচ্যুতি ঘটলেই তার পরিনাম ভয়ংকর হবে বলে বিতর্ক উসকে দেন গিরিরাজ সিং। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মন্তব্যে দেশজুড়ে তৈরি হয় সমালোচনার ঝড়।

লোকসভা ভোটের আগে রামকে ইস্যু করে ফের সাম্প্রদায়িক বিভাজন করতে চাইছে বিজেপি বলে বিভিন্ন মহল থেকে তোপও দাগা হয় গেরুয়া শিবিরের উদ্দেশ্যে। এদিন সেই ইস্যুতে মুখ খুলেছেন রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব তথা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

এদিন তিনি বলেন, “দেশের উন্নয়ন নিয়ে বিজেপির কোন এজেন্ডা নেই। বাংলায় গিরিরাজদের রাজনীতির কোন জায়গা হবে না। একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যেভাবে বিদ্বেষমূলক আচরন করছেন তা মোটেই সুস্থ রাজনীতির সাক্ষ্য বহন করে না।” পাশাপাশি রাজনৈতিক ও সামাজিক স্তরে বিজেপি বিদ্বেষের বীজ ছড়াতে চাইছে বলেও অভিযোগ করেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে আগামী লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে সমস্ত বিজেপি বিরোধী দল ঐক্যবদ্ধ হতে শুরু করেছে বলেও এদিন জানান তিনি। রাজনৈতিক মহলের মতে, সাম্প্রদায়িক ইস্যুতে বারেবারে বিজেপিকে কটাক্ষ করেছে রাজ্যের ঘাসফুল শিবির। এদিন অযোধ্যার রাম মন্দিরের শুনানি পিছিয়ে যাওয়াতে সেই বিজেপিরই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিংহের বিতর্কিত মন্তব্যে রাজ্যে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস বাড়তি অক্সিজেন পেল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!