এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মিলখা সিং বিতর্কে এবার পাল্টা আইনি পদক্ষেপের পথে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়

মিলখা সিং বিতর্কে এবার পাল্টা আইনি পদক্ষেপের পথে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়

গত কয়েকদিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট ভাইরাল – সেখানে দাবি করা হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গের স্কুলশিক্ষার কোনো একটি পাঠ্য বইয়ে ভারতের সর্বকালের অন্যতম সেরা অ্যাথলিট মিলখা সিংয়ের স্থানে ছবি দেওয়া আছে তাঁর বায়োপিকে অভিনয় করা ফারহান আখতারের। এমনকি, ওই পোস্টটিতে ‘ট্যাগ’ করা হয় স্বয়ং অভিনেতাকেই।

পোস্টটি দেখে সাথেসাথেই মিলখা সিংয়ের চরিত্রে অভিনয় করা ফারহান আখতার ট্যাগ করেন তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়ানকে। তিনি পরের দিন ফারহান আখতারকে ট্যুইটারেই স্পষ্ট করে দেন, এই নিয়ে তিনি রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে নিশ্চিত যে এটি রাজ্য সরকারের কোনো পাঠ্য বইয়ের ঘটনা নয়। কোনো এক বেসরকারি পাবলিশিং সংস্থার বইয়ে এই ভুলটি আছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে, সোশ্যাল মিডিয়ায় এই পোস্টটি ভাইরাল হওয়ার সাথে সাথেই পশ্চিমবঙ্গের সার্বিক শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে অনেক প্রশ্ন তোলেন অনেক নেটিজেন। এমনকি এই নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেও রীতিমত আক্রমন করা হয় – আর এসবেই রীতিমত ক্ষুব্ধ রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী। পার্থবাবু এই প্রসঙ্গে বলেন, যাঁরা এসব করছেন, তাঁরা না জেনেই করছেন, সরকারকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। – এটা সরকারের কোনও বই নয়।

তবে শুধু ক্ষোভ জানিয়েই যে খাঁটি থাকতে চান না পার্থবাবু, সেকথাও তিনি স্পষ্ট করে দিয়েছেন। তৃণমূল কংগ্রেস মহাসচিব রীতিমত হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, এই বই যারা প্রকাশ করেছে, তাদের ধরার চেষ্টা করা হবে। কিন্তু সেই সুযোগে সরকারের গায়ে কালি ছেটাতে কেউ কেউ বিরোধী প্রচার করছে। তথ্যপ্রযুক্তি আইনের সাহায্য নিয়ে ওই ব্যক্তিদের বিরুদ্ধেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। শুধু তাই নয়, যাঁরা প্রথমে এটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!