এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পার্শ্বশিক্ষকদের পাশে দাঁড়িয়ে সরকারের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিলেন প্রাক্তন তৃণমূল নেতা, জানুন বিস্তারিত

পার্শ্বশিক্ষকদের পাশে দাঁড়িয়ে সরকারের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিলেন প্রাক্তন তৃণমূল নেতা, জানুন বিস্তারিত

 

লোকসভা নির্বাচনের আগেই তৃণমূল ত্যাগ করেছিলেন তিনি। দিল্লিতে গিয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে দেখা গিয়েছিল তৃণমূল নেতা অর্জুন সিংহকে। মূলত ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রে অর্জুনবাবুর বদলে দীনেশ ত্রিবেদীকে প্রার্থী করার জন্যই তৃণমূল ত্যাগ করেন অর্জুন সিংহ বলে দাবি রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

আর বিজেপিতে এসে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের দীনেশ ত্রিবেদীর বিরুদ্ধে বিজেপির প্রার্থী হন অর্জুন সিংহ। প্রাক্তন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে অবশেষে নিজের জয় নিশ্চিত করে নেন তিনি। বর্তমানে সেই অর্জুনবাবু ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ।

আর এই পরিস্থিতিতে প্রায় প্রতিদিনই বিজেপির তরফ বিভিন্ন ইস্যুতে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে কটাক্ষ করা হচ্ছে। আর এবার রাজ্য সরকারের ঘুম কেড়ে নেওয়া পার্শ্ব শিক্ষকদের অবস্থান বিক্ষোভে যোগ দিয়ে তৃণমূলকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন বিজেপির অর্জুন সিংহ। বস্তুত, হাইকোর্টের নির্দেশ পেয়ে গত 11 নভেম্বর থেকে বিকাশ ভবনের 100 মিটার দূরে সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্ক মেলার মাঠের সামনে কয়েক হাজার পার্শ্ব শিক্ষক-শিক্ষিকারা অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করেছেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন সেই পার্শ্বশিক্ষকদের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে তাদের ধর্না মঞ্চে উপস্থিত হতে দেখা যায় ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহকে। আর এই ধর্না মঞ্চে উপস্থিত হয়েই সেখান থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সরব হন এই প্রাক্তন তৃণমূল নেতা। তিনি বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে মানবিক বলে কোনো ব্যাপার নেই। উনি মুখে মানবিক। যদি সংবিধান না থাকত, তাহলে এখানে যতজন আছেন, তাদের ওপর দিয়ে রোলার চালিয়ে মেরে দিতেন। শিক্ষকরা মাটিতে বসে এভাবে আন্দোলন করছেন, এটা গ্রহণযোগ্য নয়। এনিয়ে রাজ্যপাল যে কথা বলেছেন, তা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মানবেন না। কারণ তার পরিবারের লাভ হয় না, এমন কোনো কাজ উনি করবেন না।”

আর এরপরই পার্শ্বশিক্ষকদের পাশে থাকার বার্তা দেন বিজেপির অর্জুন সিংহ। তিনি বলেন, “আমি এদের আন্দোলনের সঙ্গে নিশ্চিতভাবেই রয়েছি। কল্যাণী থেকে এদের আন্দোলনে রয়েছি। যতদিন না এদের পাওনা আদায় হচ্ছে, ততদিন আমি এই আন্দোলনের সঙ্গে থাকব।” বিশ্লেষকরা বলছেন, এদিন অর্জুন সিংহ পার্শ্বশিক্ষকদের এই ধর্না মঞ্চে এসে সরকারের বিরুদ্ধে মন্তব্য করে রাজ্যের শাসকদলের অস্বস্তিকে আরও দ্বিগুণ পরিমাণে বাড়িয়ে দিলেন।

এদিন পার্শ্বশিক্ষকদের এই টাকা দিয়ে নীল-সাদা কোম্পানির রং করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন এই বিজেপি সাংসদ। যার কারণ হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো তথা তৃণমূল যুব সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথাও তুলে ধরেন তিনি। সব মিলিয়ে সমাজের মূল স্তম্ভ পার্শ্ব শিক্ষকদের আন্দোলনে পাশে থেকে একদিকে শাসকদলকে কটাক্ষ, আর অন্যদিকে শিক্ষকদের সহানুভূতির বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করলেন বিজেপির অর্জুন সিংহ বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!