এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বোর্ড গঠনের অশান্তি নিয়ে নবান্নের কাছে আগেই রিপোর্ট ছিল? অজ্ঞাত কারনে তা ‘গুরুত্বহীন’?

বোর্ড গঠনের অশান্তি নিয়ে নবান্নের কাছে আগেই রিপোর্ট ছিল? অজ্ঞাত কারনে তা ‘গুরুত্বহীন’?

“প্রশাসন যদি অশান্তি এড়াতে চায় তাহলে তারা সেটি এক মিনিটেই করে দেখাতে পারে। কিন্তু রাজ্যের প্রশাসনের সেই অশান্তিকে দমানোর কোনো ইচ্ছেই নেই”- পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনকে ঘিরে জেলায় জেলায় গন্ডগোলের জেরে বেশ কিছুদিন ধরেই এই অভিযোগ করে আসছে বিরোধী দলগুলি। এবার কি তাহলে বিরোধী দলগুলির সেই অভিযোগেই সিলমোহর পড়ল?

সূত্রের খবর, পঞ্চায়েতের ফল প্রকাশের পরই বোর্ড গঠনে কোনোরুপ অশান্তি হতে পারে কি না সেই বিষয়ে গোপনে খোঁজখবর শুরু করেছিলেন দক্ষিনবঙ্গের প্রশাসনের এক পদস্থ কর্তা। সেখানেই তিনি 27 ও 28 আগষ্ট বোর্ড গঠনে বড় গন্ডগোলের ইঙ্গিত পেয়ে নবান্নের ডিজি এবং আইবিকে একটি রিপোর্ট পাঠান।

জানা যায়, প্রশাসনিক কর্তার পাঠানো সেই রিপোর্টে মুর্শিদাবাদের নটি, হাওড়ার চারটি, বারাসত এবং বসিরহাটে 14 টি, সুন্দরবনের দুটি, মুর্শিদাবাদের 17 টি, নদীয়ার সাতটি, বসিরহাটের তিনটি জায়গায় গোলমালোর আশঙ্কার করা হয়েছিল। আর সেই রিপোর্ট মোতাবেক বোর্ড গঠনের দিন এই এই জায়গাগুলোতেই বেশি গন্ডগোলের সৃষ্টি হয়েছে। এমনকী এই জায়গাগুলোতেই পুলিস ফোর্স আনতে দেরি হওয়ায় অশান্তি আরও বৃদ্ধি পেয়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

শুধু তাই নয়, বোর্ড গঠনকে ঘিরে কোথাও কোথাও শাসকের সাথে শাসকের লড়াই, কোথাও বিরোধীর সাথে শাসকের লড়াইয়ে মালদহ এবং উত্তর 24 পরগনার জেলাগুলিতে প্রান হারাতে হয়েছে অনেককে। আর এইখানেই অনেকের প্রশ্ন, পুলিশের রিপোর্টের পরেও কেন সেই রিপোর্টকে গুরুত্ব দেয়নি প্রশাসন? তা নিয়ে একটি প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যাচ্ছে।

Top
error: Content is protected !!