এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > পঞ্চায়েতে গেরুয়া ঝড়, কি বলছে লোকসভার শেষে? কেমন ভোট লালমাটির পুরুলিয়াতে?

পঞ্চায়েতে গেরুয়া ঝড়, কি বলছে লোকসভার শেষে? কেমন ভোট লালমাটির পুরুলিয়াতে?

Priyo Bandhu Media


গতকাল ষষ্ঠদশ লোকসভা নির্বাচনে জঙ্গলমহলের এলাকাগুলিতে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। একেই প্রবল তীব্র তাপদাহ, তার উপরে ভোটের গরম বাজার – এই দুইয়ের মধ্যে দিয়ে ঠিক কিভাবে সম্পন্ন হল জঙ্গলমহল সহ পুরুলিয়া লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচন! জানা যায়, রবিবার ভোটের দিন অন্যান্য দিনের তুলনায় কিছুটা হলেও তাপপ্রবাহ কম থাকায় এবং আকাশ মেঘলা থাকায় কার্যত উৎসবের মেজাজেই নিজেদের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করেছেন সাধারণ মানুষ।

বিরোধীদের পক্ষ থেকে যেখানে প্রায়শই অভিযোগ জানানো হয় যে, তাদের ক্যাম্প অফিস করতে দেওয়া হচ্ছে না, যার পেছনে বাঁধা দিচ্ছে শাসক দল, এদিন সেই বিরোধীদের অনেক ক্যাম্প অফিসে দেখা গেল। তবে বেলা বাড়ার সাথে সাথে বিরোধীদের সেই ক্যাম্প অফিসে তেমন ভাবে ভিড় জমতে দেখা যায়নি। তবে কিছু জায়গায় ইভিএম খারাপ হওয়ায় দেরিতে সেই ভোটগ্রহণপর্ব শুরু হয়।

এদিন বাগমুন্ডির বাড়োরিয়া প্রাথমিক স্কুলের একটি বুথে সকাল সাতটার আগে থেকেই ভোটারদের লম্বা লাইন দেখা গেলেও 60 টার বেশি ভোট হয়ে যাওয়ার পর এক ভোটার ইভিএম উল্টো করে রাখার অভিযোগ করলে কিছুটা হলেও বিশৃঙ্খলা ছড়ায়। গোটা বিষয়টি নিয়ে সরব হতে দেখা যায় শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে।তবে ইভিএম সঠিক অবস্থায় আনার ব্যাপারে প্রিসাইডিং অফিসার আপত্তি জানালেও পরে নির্বাচন কমিশনের হস্তক্ষেপে তা সোজা করলে পরিস্থিতি আয়ত্তে আসে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিকে সকাল সাড়ে আটটা নাগাদ বাঘমুন্ডি হাইস্কুলে গিয়ে সেখানকার তিনটি বুথেই ভোটাররা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকলেও তাদের মাথার উপর কোনো আচ্ছাদনের ব্যবস্থা রাখা হয়নি। অন্যদিকে মাঠা নিম্ন বুনিয়াদি প্রাথমিক স্কুলের বুথে গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে ব্যাপক সন্ত্রাসের অভিযোগ উঠলে এবার সেখানে শান্তিপূর্ণভাবেই ভোট দিতে পারছেন তারা বলে জানালেন ভোটাররা। এদিন এই বুথে নিজের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করে বেরিয়ে এক গৃহবধূ সমলি মাজি বলেন, “গতবার এই বুথে অশান্তি হলেও এবার সকাল-সকাল ভোট দিতে এসেছি। শান্তিতে নিজের ভোট দিতে পেরেছি।”

তবে বলরামপুরের ফুলচাঁদ হাইস্কুলের কিছু দূরে শাসক দল এবং বজরং দলের সদস্যদের মধ্যে তীব্র সংঘর্ষের ঘটনায় বিজেপি স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য সহ মোট দুজন জখম হন বলে খবর আসে। পরে গোটা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে পুলিশ বাহিনী পৌঁছয়। এদিকে একে একে অপরের সঙ্গে ঠাট্টা এবং সৌজন্য বিনিময়ের মধ্য দিয়েই ভোট হতে দেখা গেছে মানবাজার রাধামাধব হাইস্কুলে।

একইভাবে শান্তিতেই ভোটগ্রহণ পর্ব সম্পন্ন হয়েছে মানবাজার শ্যামপুর প্রাথমিক স্কুলে। কিন্তু দিনের শেষে কেমন ভোট হল? কি বলছে সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা? এদিন এই প্রসঙ্গে এই লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী জ্যোতির্ময় মাহাতো বলেন, “তৃণমূল সর্বত্র ভোট লুটের চেষ্টা করেছিল। বিজেপি কর্মীরা তৃণমূলের সেই বিষদাঁত ভেঙে দিয়েছে।” এদিকে ছোট কিছু ঘটনা ছাড়া মোটামুটি ভোট শান্তিপূর্ণ ভাবেই হয়েছে বলে জানান এখানকার ফরওয়ার্ড ব্লক প্রার্থী বীরসিং মাহাতো।

এদিকে এই ব্যাপারে পুরুলিয়া জেলা বিজেপির সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী বলেন, “কাশিপুর ছাড়া পুরুলিয়া লোকসভা কেন্দ্রের সব জায়গায় ভোটগ্রহণ নির্বিঘ্নে হয়েছে।” অন্যদিকে জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতো বলেন, “ভোট নির্বিঘ্ন হলেও কেন্দ্রীয় বাহিনী বিজেপির হয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। যা সম্পূর্ণ অনৈতিক।”

সব মিলিয়ে অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগের মাঝেও ভোট যে শান্তিপূর্ণভাবেই হয়েছে পুরুলিয়ায় তা এক বাক্যে মেনে নিচ্ছে সমস্ত রাজনৈতিক দলই।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!