এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েত ভোটে এখনো ফ্যাক্টর কি মুকুল? উত্তর দিলেন তৃণমূলের নেতারা

পঞ্চায়েত ভোটে এখনো ফ্যাক্টর কি মুকুল? উত্তর দিলেন তৃণমূলের নেতারা

রাজ্য শাসক দলের পঞ্চায়েত নির্বাচনের সাফল্যের পিছনে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের ভূমিকা ঠিক কতটা তা নিয়ে জোর বিতন্ডা চলছে রাজনৈতিক মহলে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ব্যারাকপুরের অঞ্চলের মানুষ মুকুল রায়ের মহকুমার পঞ্চায়েত গুলির প্রায় সব কটাতেই তৃণমূল কংগ্রেস জয়লাভ করেছে। এই প্রসঙ্গে একদা মুকুল রায়ের ঘনিষ্ঠ নৈহাটির তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক পার্থ ভৌমিক বললেন, ” মুকুল রায়ের গুরুত্ব আদৌ আছে কি না, তা আমি জানি না। ওঁর গুরুত্ব শুধু প্রেসের কাছে, মানুষের কাছে ওঁর কোনও গুরুত্ব নেই। ” শুধু মুকুল রায়ের গড় বলেই নয় সারা রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনে শাসক দলের সাফল্যের বিষয়ে পার্থ বাবু বললেন,”মমতা বন্দোপাধ্যায়ের উন্নয়নের কাছে হার মেনেছে বিরোধীরা।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

বিরোধীদের প্রচারের হাতিয়ার ছিল না। ভোটের দিন থেকেই বিরোধীদের খুঁজে পাওয়া যায়নি। মানুষ ভোটের লাইনে দাঁড়িয়েও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে জয়ধ্বনি করেছেন।” অন্যদিকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের ফলাফলে মুকুল রায়ের ভূমিকা প্রসঙ্গে ভাটপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক অর্জুন সিং নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বললেন, “মুকুল রায় গদ্দার ছিল,গদ্দার আছে গদ্দার থাকবে। আমি গদ্দারদের নিয়ে বেশি কথা বলতে চাই না। এই গদ্দারকে আমাদের জায়গা দেওয়ার কোনও দরকার নেই।” পঞ্চায়েত নির্বাচনের একটি গণনা কেন্দ্রে উপস্থিত থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের জয় প্রসঙ্গে তিনি এদিন বললেন, “সারা বাংলায় মা, মাটি, মানুষের জয় হচ্ছে। বিরোধীরা ভোটও পায়নি সিটও পায়নি। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত একটা সরকার মানুষের পাশে দাঁড়ায়। এটা দেশের কোথাও নেই। আমাদের সর্বোচ্চ নেত্রী, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উনি এটা প্রমাণ করে দিয়েছেন যে মানুষের পাশে থাকলে মানুষ তার ফল উপহার দেবে। সেই উপহার আমরা পেয়েছি।” একইসাথে বিজেপি দলের ভবিষ্যত কী হতে পারে সেই সম্ভবনার কথা তিনি দাবি করে বললেন, “২০১৯, বিজেপি ইজ় ফিনিশড। মমতা ব্যানার্জি এই স্লোগান আগেই দিয়েছেন। এটা আমরা প্রমাণ করব। ২০১৯-এর পর ভারতের রাজনীতিতে বিজেপি বলে কোনও জন্তু থাকবে না।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!