এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েত নির্বাচনে আদালতের হস্তক্ষেপ কেন, স্পষ্ট করে দিলেন বিচারপতি

পঞ্চায়েত নির্বাচনে আদালতের হস্তক্ষেপ কেন, স্পষ্ট করে দিলেন বিচারপতি

রাজ্যের পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে হাইকোর্টে মামলা চলছে।স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়েছে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় উপর।এদিন আদালতে পঞ্চায়েত মামলার শুনানি শুরু হতেই শাসকপক্ষের কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় যুক্তি দিয়ে বলেন যে রাজ্যের নির্বাচন কমিশনকে ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে।এ নিয়ে কোনো প্রশ্ন বা বিতর্ক হলে প্রার্থী বা ভোটদাতা ভোট শেষ হওয়ার ৩০ দিনের ভিতর নির্দিষ্ট জায়গায়( প্রথম ধাপে সিভিল জজ জুনিয়ার এবং পরের ধাপে জেলা জজ) অভিযোগ জানাতে পারেন।কিন্তু কোনো অবস্থাতেই হাইকোর্ট ভোটপ্রক্রিয়ায় নাক গলাতে পারে না।ভোট প্রক্রিয়ায় স্থগিতাদেশ জারি করার অধিকারও নেই হাইকোর্টের।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এর পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি সুব্রত তালুকদার জানান নির্বাচন কমিশন যদি পঞ্চায়েত মনোনয়ন পেশের মেয়াদ বাড়ানোর নির্দেশ দিয়ে আবার তা প্রত্যাহার করে না নিতো তাহলে এ ব্যাপারে হাইকোর্টের মাথা না ঘামালেও চলতো।তিনি আরো জানিয়ে দেন যে সুপ্রিম কোর্ট ৯ ই এপ্রিল জানিয়ে দিয়েছিলো যে তাঁরা পঞ্চায়েত ভোটে হস্তক্ষেপ করতে চায় না।এর পাশাপাশি এও জানিয়েছিলো তাঁরা যেহেতু হস্তক্ষেপ করতে চায় না, তাই কমিশনের উচিৎ অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া।ওইদিনই মামলা হয়েছে নির্বাচন কমিশন মনোনয়ন পেশের মেয়াদ বাড়িয়ে তুলে নেওয়ার জন্যে।বিচারপতির প্রশ্ন ছুঁড়েছেন, ” কমিশন ওভাবে নির্দেশ প্রত্যাহার না করলে নির্বাচনে হাইকোর্টের হস্তক্ষেপের প্রয়োজন হত কি?”আজ বুধবার।নির্বাচন প্রক্রিয়ায় উপর স্থগিতাদেশ আজও রয়েছে।মামলার শুনানি চলবে আজও।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!