এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন নিয়ে তৃণমূল-বিজেপি মারামারিতে রণক্ষেত্র পাণ্ডুয়া, শক্তি দেখাচ্ছে গেরুয়া শিবির

পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন নিয়ে তৃণমূল-বিজেপি মারামারিতে রণক্ষেত্র পাণ্ডুয়া, শক্তি দেখাচ্ছে গেরুয়া শিবির

ফের শাসক বনাম বিরোধীর সংঘর্ষে উত্তপ্ত হল বাংলা। কারন এবারও সেই পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন। সূত্রের খবর, পান্ডুয়ার 22 আসনবিশিষ্ট সিমলাগড় পঞ্চায়েতে এবার 11 টি তৃনমূল, 9 টি বিজেপি, 1 টিতে সিপিএম ও 1 টিতে নির্দল প্রার্থী জয়ী হয়েছে। জানা যায়, এই পঞ্চায়েতে প্রধান পদটি এবার ওবিসি এবং মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত। এবং এই ওবিসি ও মহিলা একমাত্র নির্দল থেকে জয়ী রেজিনা খাতুনই ছিলেন। ফলে তাঁকে দলে টানতে রীতিমত দড়িটানাটানি শুরু হয় তৃনমূল ও বিজেপির মধ্যে।

এদিন সকাল 11 টার সময় শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস তাঁদের প্রার্থী এবং সেই নির্দলকে সাথে নিয়ে পঞ্চায়েতে ঢুকলে বিজেপির সাথে তাঁদের তুমুল বচসা বাঁধে। শুরু হয় হাতাহাতিও। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতিকে কিছূটা শান্ত করে। এদিকে এই ঘটনায় তৃনমূল ও বিজেপি দুদলের কর্মীসমর্থকরাই গুরুতর আহত হয়েছেন।

জানা গেছে, তৃনমূলের 5 জন ও বিজেপির 15 জন কর্মী এতে জখম হন। দুদলেরই কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁদের চুচুড়া ইমামবাড়া হাসপাতালে স্থানান্তরিতও করা হয়। এদিকে এই বোর্ড গঠন এবং হামলা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক কাজিয়াও। হুগলীর বিজেপি যুব নেতা সুরেশ সাউ বলেন, “আমরা নির্বাচিত সদস্যদের নিয়ে বোর্ড গঠন করতে গেলে তৃনমূলের হার্মাদরা আমাদের ওপর হামলা করে।”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বিজেপির আরও অভিযোগ, ঘটনার সময় পুলিশ নীরব দর্শকের ভূমিকায় দাড়িয়ে ছিল। এদিকে বিজেপির  তোলা সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে শাসকদলের দাবি, বহরাগত নিয়ে বিজেপিই প্রথমে হামলা চালায়। তাই তৃনমূলও পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তোলে। সব মিলিয়ে শাসকের সাথে পাল্লা দিয়ে এবার রাজনৈতিক লড়াইয়ের পাশাপাশি নিজেদের শক্তিপ্রদর্শনেও নেমে পড়েছে বিজেপি।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!