এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > জম্মু-ভারতেরই অবিচ্ছেদ্য অংশ, অবশেষে রাষ্ট্রসঙ্ঘে মেনে নিতে বাধ্য হল পাকিস্তান

জম্মু-ভারতেরই অবিচ্ছেদ্য অংশ, অবশেষে রাষ্ট্রসঙ্ঘে মেনে নিতে বাধ্য হল পাকিস্তান

জম্মু-কাশ্মীরকে নিয়ে অনেকদিন ধরেই ভারত বনাম পাকিস্তানের মধ্যে টানাপোড়েন চলেছে। জম্মু-কাশ্মীর ভারতের অন্তর্গত হলেও তা পাকিস্তানের অধিকার বলে এতদিন দাবি করে আসছিল পাক প্রশাসন। অবশেষে জম্মু-কাশ্মীর যে ভারতেরই অঙ্গরাজ্য, সেই চিরন্তন সত্যটা স্বীকার করে নিতে বাধ্য হল পাকিস্তান।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার পরিষদের এক বৈঠকের ফাঁকে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মহম্মদ কুরেশি জানিয়ে দেন যে, জম্মু ও কাশ্মীর ভারতীয় রাজ্য।কিন্তু হঠাৎ কেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী এই চিরন্তন সত্যিটা মেনে নিলেন! তাহলে কি তাদের শুভবুদ্ধির উদয় হতে শুরু করল!

কেননা এদিনের আগে পর্যন্ত পাকিস্তানের তরফে প্রতিবারই জম্মু-কাশ্মীরকে ভারত অধিকৃত কাশ্মীর বলে উল্লেখ করা হয়েছিল। কিন্তু মঙ্গলবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের মঞ্চে ভারতীয় রাজ্যগুলির জম্মু-কাশ্মীরকে মেনে নেওয়ায় বিদেশমন্ত্রীর মন্তব্যে তীব্র জল্পনা ছড়িয়ে পড়েছে। তবে “ভারতের অন্তর্গত জম্মু-কাশ্মীর” বলে পাক বিদেশমন্ত্রী স্বীকার করে নিলেও জম্মু-কাশ্মীরের বর্তমান অবস্থা নিয়ে ভারতকে তীব্র কটাক্ষ করতে দেখা যায় তাকে।

তিনি বলেন, “জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছে ভারত। কাশ্মীরের সঙ্গে বাইরের কেউ যোগাযোগ করতে পারছেন না। সমস্ত পরিষেবা বিপর্যস্ত। জম্মু-কাশ্মীর থেকে ভারত অবৈধভাবে 370 ধারা বিলোপ করেছে।” তবে পাক বিদেশমন্ত্রী এই দাবি করলেও তা সম্পূর্ণরূপে উড়িয়ে দিয়েছেন ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক সচিব বিজয় ঠাকুর সিং। তিনি বলেন, “জম্মু-কাশ্মীর ভারতের আভ্যন্তরীণ বিষয়। বৈষম্য দূর করার লক্ষ্যেই সেখান থেকে 370 ধারা বিলোপ করেছে কেন্দ্র।”

বস্তুত, গত 5 আগস্ট জম্মু এবং কাশ্মীর থেকে 370 ধারা প্রত্যাহার করে সেখানকার মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে দেখা গিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকারকে। আর এরপরই ভারতের এই পদক্ষেপকে অবৈধ বলে আখ্যা দিতে দেখা গিয়েছিল পাকিস্তানকে। তবে এই ব্যাপারে যে কোনো তৃতীয় পক্ষের মধ্যস্থতা মানা হবে না তা আগেভাগেই জানিয়ে দিয়েছিল ভারত। কিন্তু এবার কাশ্মীর ইস্যুতে কার্যত একঘরে হয়ে যেতেই পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী জম্মু-কাশ্মীরকে ভারতের অংশ হিসেবে স্বীকার করে নিতে বাধ্য হল বলে মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

একাংশের মতে, সূর্য পূর্ব দিকে ওঠে, পশ্চিম দিকে অস্ত যায়, এই চিরন্তন সত্য জম্মু কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ এই চিরন্তন সত্যটি পাক বিদেশমন্ত্রী স্বীকার করে নেওয়ায় সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা প্রতিক্রিয়া দিতে শুরু করেছেন নেটিজেনেরা। ভারতের অনেকেই এই ট্যুইটার, ফেসবুকে পাক বিদেশমন্ত্রীর ভিডিওটি পোস্ট করে লিখেছেন, অবশেষে এতদিন পর ভারতের বক্তব্যকে মান্যতা দিল পাকিস্তান।

অপরদিকে পাক বিদেশমন্ত্রী এই ধরনের মন্তব্য করায় তাকে পাকিস্তানের তরফে অনেক সমালোচনার শিকার হতে হয়েছে। পাক বাসিন্দাদের একাংশের মতে, কাশ্মীর নিয়ে মন্তব্য করার সময় আরও অনেকটাই সচেতন থাকা উচিত ছিল বিদেশমন্ত্রীর। সব মিলিয়ে এবার নিজের বিদেশমন্ত্রীর মন্তব্যে তীব্র বিপাকে জড়িয়ে পড়লেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!