এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > পাকিস্তানকে প্রত্যাঘাত নিয়ে কি ভাবছেন অমর শহীদ সুদীপ বিশ্বাসের পরিবার?

পাকিস্তানকে প্রত্যাঘাত নিয়ে কি ভাবছেন অমর শহীদ সুদীপ বিশ্বাসের পরিবার?

গতকাল ভোরে গোটা দেশ যখন গভীর নিদ্রামগ্ন তখন ভারতীয় বায়ুসেনা মিরাজ ২০০০ সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তানে ঢুকে ভেঙে গুড়িয়ে দিয়ে এসেছে পুলওয়ামা কাণ্ডে অভিযুক্ত জইশ-ই-মহম্মদের জঙ্গী ঘাঁটি। ৪৪ জন ভারতীয় সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যুর বদলা নিয়েছে ভারত ৩০০ জন জঙ্গী খতম করে। ভারতের এই প্রত্যাঘাতে বেজায় খুশি দেশবাসী।

এর জেরে প্রশংসা কুড়িয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সহ ভারতীয় বায়ুসেনা। এই প্রত্যাঘাতের খবর শুনে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে শহীদ সুদীপ বিশ্বাসের পরিবার। মঙ্গলবার সকালেই টিভি খুলতেই বায়ুসেনার অভিযানের খবর শোনে পলাশীপাড়ার হাঁসপুকুরিয়া গ্রামের শহিদ পরিবার। শহীদ সুদীপের মা মমতাদেবী আবেগাপ্লুত হয়ে মিডিয়ার সামনে বলেন,”আমার বুকের ভিতর আগুন জ্বলছে। আরও এমন আক্রমণ হোক। আমার কোল খালি হয়েছে। পাকিস্তানকে আরও আঘাত করা হলে ছেলের আত্মা শান্তি পাবে।”

তিনি আরো জানালেন,১২ দিন ধরেই কিছু দাঁতে কাটতে পারছেন না তিনি। ভারত সরকার আরো প্রত্যাঘাত নিলে তবেই তাঁর বুকের আগুন নিভবে। পাশাপাশি দেশের শান্তি কামনা করে বায়ুসেনার কাজকে বাহবা জানালেন তিনি। অন্যদিকে,ভারতীয় বায়ুসেনার প্রতিশোধের খবর শুনে আবেগে চোখের জল ধরে রাখতে পারছিলেন না সুদীপের বাবা সন্ন্যাসী বিশ্বাস। ছেলের মৃত্যুর খবর শুনে এই বদলাই দাবী করেছিলেন তিনি।

তাঁর ছেলেকে হারানোর ১২ দিনের মাথায় ভারত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যে বদলা নিয়েছে তাতে বেজায় খুশি তিনি। বললেন,”ভালো লাগছে পাকিস্তানের জঙ্গিরা মারা গিয়েছে। ভারত সরকারের এই কাজে আমি খুশি। আমার মতো অনেকের ছেলে চলে গিয়েছে। আমরা যুদ্ধই চাই। যুদ্ধে ওই দেশের সমস্ত জঙ্গি নির্মূল হোক। তবেই এ দেশে শান্তি ফিরবে। আর ওরা হামলা চালাতে পারবে না।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এছাড়া সুদীপের খুড়তুতো দাদা সমর বিশ্বাস বললেন,”আমার ভাই দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছে। ভারত সরকার যে পাল্টা প্রত্যাঘাত করল, তাতে আমরা খুশি। ওই দেশের সব জঙ্গি নিহত হলে আমার ভাইয়ের আত্মা শান্তি পাবে।”

প্রসঙ্গত, গত ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে সিআরপিএফের চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন শহীদ সুদীপ বিশ্বাস। ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামার জঙ্গী হামলার সময় ৫৪ নম্বর ব্যাটেলিয়নের জঙ্গীদের সঙ্গে ছিলেন তিনি। পাকিস্তানের বর্বরোচিত এই জঙ্গী হামলায় অন্যান্য সেনা জওয়ানদের সঙ্গে শহীদ হন সুদীপ।

প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি মতো ভারত সত্যিই পাকিস্তানকে এই হামলার কড়া জবাব দিতে সমর্থ হয়েছে। শহীদ সুদীপের বন্ধুরাও ভারতীয় বায়ুসেনার প্রত্যাঘাতের পক্ষে সরব হয়েছে। পাকিস্তানের সব জঙ্গিঘাঁটিই খতম করুক ভারত,এমনটাই দাবী সকলের।

জঙ্গী হামলায় সুদীপের মৃত্যুর খবর শুনে শোকে ভেঙে পড়েছিল শহীদের পরিবার সহ পলাশীপাড়ার হাঁসপুকুরিয়া। প্রতিশোধের আগুনে রক্ত টগবগ করে ফুটছিল তাঁদের। সুদীপের শহীদ হওয়ার ২ সপ্তাহের মধ্যেই এল সুসংবাদ। ভারতীয় বায়ুসেনারা পাকিস্তানে গিয়ে প্রায় ৩০০ জঙ্গির প্রাণ নিয়ে এসেছে। টিভি মারফত এই খবর পেয়ে সুদীপের মা,বাবা এবং পরিবারের সঙ্গেই সন্তুষ্ট হল গ্রামবাসী।

পরিবারের অন্যান্যদের মতো তাঁরাও চাইছেন ভারত আরো পাকিস্তানকে আঘাত করুক। আর কোনো জঙ্গী হামলায়ে ভারতীয় জওয়ানদের প্রাণ না যায় এটাই তাঁদের কাম্য। এর পাশাপাশি,ভারতীয় বায়ুসেনার এই বীরত্বের ভূয়সী প্রশংসা করলেন সকলেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!