এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > অর্ডারের ভুল ব্যাখ্যা! অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীদের ভাতা এক টাকাও কমানো হয়নি, দাবি দপ্তরের মন্ত্রীর

অর্ডারের ভুল ব্যাখ্যা! অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীদের ভাতা এক টাকাও কমানো হয়নি, দাবি দপ্তরের মন্ত্রীর

অঙ্গনওয়াড়ি সহায়ক ও কর্মীদের ভাতা কমানো নিয়ে একদিকে যখন বিক্ষোভ আন্দোলনে প্রবল চাপে পড়ছে রাজ্য সরকার ঠিক তখনই সেই অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী ও সহায়িকাদের বর্ধিত ভাতা এক টাকাও কমানো হয়নি বলে দাবি করলেন রাজ্যের নারী শিশু ও সমাজকল্যাণ দপ্তরের মন্ত্রী শশী পাঁজা।

আর একদিকে কর্মী সহায়িকা এবং অন্যদিকে সরকার দুইয়ের এই পরস্পরবিরোধী মন্তব্যে এখন তৈরি হয়েছে প্রবল সমস্যা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দীর্ঘ দাবির পর গত 23 আগস্ট এই অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী ও সহায়িকাদের এক হাজার টাকা করে ভাতা বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করে রাজ্য সরকার।

সরকারের তরফে জানানো হয় যে, এই বাড়তি ভাতা অক্টোবর মাস থেকে কার্যকরী হবে। আর সরকারি ঘোষণা মতোই অক্টোবর মাসের শেষে কিছু কর্মী এবং সহায়কের ব্যাংক একাউন্টে 1000 টাকা ঢুকলেও অনেক কর্মীরাই 400 এবং সহায়িকারা 700 টাকা করে পান। এই ঘটনার পরই শুরু হয় তীব্র চাঞ্চল্য।

জানা যায়, চলতি মাসের 1 তারিখে একটি নতুন আদেশে রাজ্যের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, এই কর্মীদের 400 এবং সহায়িকাদের 700 করেই বর্ধিত ভাতা দেওয়া হবে। কিন্তু প্রথমে এক ঘোষণা করেও পরে কেন সেই ঘোষণা থেকে সরে আসলো রাজ্য?

এবার তার প্রতিবাদেই গতকাল দুপুরে সেই অঙ্গনওয়াড়ির কয়েকশো কর্মী, সহায়িকা নিয়ে কলকাতা পুরভবনের কাছে একটি প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে সিটু। জানা যায়, এদিনের এই সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন সিটু রাজ্য সভাপতি সুভাষ মুখোপাধ্যায়, অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী সংগঠনের নেত্রী রত্না দত্ত সহ অন্যান্যরা।

এদিকে শুধু প্রতিবাদ সভাই নয়, এই সভা শেষের পর কর্মী, সহায়িকা মিলে মিছিল করে রাজভবনের দিকে গেলে রানী রাসমণি এভিনিউয়ের কাছে তাদের আটকে দেয় পুলিশ। পরে অবশ্য রাজ্যপাল কে এই ব্যাপারে একটি ডেপুটেশন দেয় সেই বিক্ষোভকারীদের একটি প্রতিনিধিদল। কিন্তু কেন এই ভাবে প্রথমে 1000 টাকা বর্ধিত ভাতা বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেও পরে তাকে কমিয়ে দিল রাজ্য সরকার?

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্যের সমাজকল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা বলেন, “কর্মী সহায়িকারা অচিরেই এই বিভ্রান্তির বিষয়টি বুঝতে পারবেন। সরকারের তরফে যা দেওয়ার কথা সেটাই তাদের একাউন্টে মিলবে।” তবে মন্ত্রী যাই বলুন না কেন, সরকার এই ব্যাপারে সংশোধিত অর্ডার বের করা না পর্যন্ত তারা তাদের অবস্থানে অনড় থাকবেন বলেও এদিন সাফ জানিয়ে দিয়েছেন অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী সংগঠনের নেত্রী রত্না দত্ত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!