এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অযোধ্যায় খননকার্য শুরু হতেই মিলল পুরোনো মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ! আবেগে ভাসছেন গেরুয়া সমর্থকরা

অযোধ্যায় খননকার্য শুরু হতেই মিলল পুরোনো মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ! আবেগে ভাসছেন গেরুয়া সমর্থকরা


রামমন্দির তৈরির জন্য খোদাইয়ের কাজ চলছিল, এবার তাতে প্রমাণ মিলল পুরাতন রামমন্দির অবস্থানের, ট্যুইট করলেন বিজেপির হেভিওয়েট নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। গত বছর নভেম্বরে অযোধ্যার বিতর্কিত জমির মামলার রায় দেওয়া হয় শীর্ষ আদালতের তরফে। এক্ষেত্রে রামমন্দির তৈরির পক্ষেই নির্দেশ মেলে। জানা গেছে এরপর গত ১১ই মে ওই জমিতে মন্দির তৈরির আগে জমি সমান করার জন্য মাটি খননের কাজ শুরু হয়েছে।

মন্দির নির্মাণ ট্রাস্ট কমিটি সূত্রে খবর ইতিমধ্যেই খনন কাজ শুরু করতেই মিলেছে একটি পাঁচ ফুট উচ্চতার শিবলিঙ্গ। ফলত যথেষ্টই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ এবং বিজেপি। প্রসঙ্গত বিশ্ব হিন্দু পরিষদের দাবি জমির খনন কাজ শুরু করার পরই মাটির তলা থেকে মিলেছে বহু দেবদেবীর মূর্তি এবং এই শিবলিঙ্গ। সূত্রের খবর অনুযায়ী জানা গেছে দীর্ঘ দিন ধরে এই বিতর্কিত জমি নিয়ে লড়াই করার পর রামমন্দির নির্মাণের পক্ষে নির্দেশ মিলেছে।

আর এর পরেই এই ধ্বংসাবশেষ হাতে আসায় যথেষ্টই উচ্ছ্বসিত বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ও মন্দির নির্মাণ ট্রাস্ট। জানা গেছে তাদের দাবি পূর্বে এই জমিতে রামমন্দিরই ছিল। পরবর্তী ক্ষেত্রে তা ভেঙে তার ওপরই বাবরি মসজিদ নির্মাণ করা হয় বলে দাবি তাদের। সূত্রের খবর অনুযায়ী জানা গেছে সম্প্রতি রাজ্য বিজেপি সভাপতি এ বিষয়ে মন্তব্য করেছেন এই ধ্বংসাবশেষ থেকে রামমন্দির অবস্থানের যে প্রমাণ পাওয়া গেছে, সেই সত্যতা দীর্ঘ দিন ধরে আগের সরকারের জমানায় চাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে এদিন তিনি আরও বলেন, ‘সবে তো শুরু। এর পরে আরও অনেক কিছু মিলবে। সত্যের জয় হয়েছে। এবার তৈরি হবে শ্রীরামের এক ভব্য মন্দির।’ সোশ্যাল মিডিয়া সূত্রে জানা গেছে পশ্চিমবঙ্গ বিজেপি পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় সম্প্রতি ধ্বংসাবশেষ থেকে প্রাপ্ত কয়েকটি জিনিসের ছবি টুইটারের মাধ্যমে সকলের সামনে তুলে ধরেছেন। এদিন তিনি জানিয়েছেন,’বহু দিন ধরে রামলালার অস্তিত্বের প্রমাণ দেওয়া হচ্ছিল। এখন প্রকৃতিই তার প্রমাণ দিচ্ছে। সত্য প্রমাণের জন্য আর কি চাই?’

এমনটাই সূত্রের খবর। প্রসঙ্গত জানা গেছে জমি খননের ফলে সেখান থেকে পাওয়া গেছে বহু দেবদেবীর পাথরের মূর্তি এবং তাদের ভাঙ্গা অংশ। এছাড়াও মিলেছে বহু পুরানো মন্দিরের স্তম্ভের ধ্বংসাবশেষ। প্রাপ্ত ধ্বংসাবশেষের বহু সামগ্রীই বেলে পাথরের নির্মিত এবং বিবিধ রঙের। বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট উচ্ছ্বাস দেখা গেছে মন্দির নির্মাণ ও পরিচালনা ট্রাস্ট এবং বিজেপি-র মধ্যে। কারণ এই জমি নিয়ে দীর্ঘ লড়াইয়ের সময় বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ছাড়াও বহু আখরা এবং মঠের মত ছিল পূর্বে অযোধ্যার ওই জমিতে রামমন্দিরই ছিল।

কিন্তু পরে তা ভেঙে মসজিদটি গঠিত হয়। প্রাপ্ত সূত্রের খবর থেকে জানা গেছে এদিন বিশ্ব হিন্দু পরিষদের মুখপাত্র বিনোদ বনসল জানিয়েছেন, খনন কার্য চলাকালীন ওই জমি থেকে পাঁচ ফুটের শিবলিঙ্গ ছাড়া পাওয়া গেছে বহু দেবদেবীর মূর্তি এবং অন্যান্য মন্দিরের। এছাড়াও পাওয়া গেছে পাথরের নির্মিত ফুল, কলসির মত অসংখ্য পূজার সামগ্রী। বিনোদ বনসলের মতে, প্রাপ্ত সামগ্রী গুলি থেকে ফের প্রমাণিত হয় যে জমির ওই অংশে মন্দিরই ছিল। সেটা ভেঙেই নির্মিত হয়েছিল বাবরি মসজিদ এমনটাই সূত্রের খবর।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!