এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > চাকরি দেওয়ার নাম করে তোলাবাজির অভিযোগে এবার ধ্বস্ত গেরুয়া শিবির – জেনে নিন বিস্তারিত

চাকরি দেওয়ার নাম করে তোলাবাজির অভিযোগে এবার ধ্বস্ত গেরুয়া শিবির – জেনে নিন বিস্তারিত

তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধেই এতদিন কাটমানির অভিযোগ উঠেছিল। কিন্তু এবার রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল হয়ে ওঠা বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে উঠল চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা তোলার অভিযোগ। সূত্রের খবর, বুধবার সন্ধ্যায় দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুরের নয়াবাজারের বাসিন্দা বিজেপি সমর্থক বলে পরিচিত দিলীপ বর্মন গঙ্গারামপুর থানায় বিজেপির গঙ্গারামপুর ব্লক সভাপতি সনাতন কর্মকারের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

যেখানে দিলীপবাবু অভিযোগ জানান যে, গত বছর তার স্ত্রীকে সিভিক ভলান্টিয়ারে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক লক্ষ 28 হাজার টাকা নিয়েছিলেন সনাতন কর্মকার। কিন্তু বছর ঘুরে যাওয়ার পরও স্ত্রীর চাকরি না হওয়ায় সনাতনবাবুর কাছ থেকে দিলীপবাবু টাকা চাওয়ায় তাকে মাত্র 11 হাজার টাকা ফেরত দেন সনাতন কর্মকার। কিন্তু বাকি টাকা আর তিনি ফেরত দেননি। আর এতেই দলের ওই নেতার বিরুদ্ধে এবার পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন দিলীপ বর্মন নামে ওই বিজেপি কর্মী।

সূত্রের খবর, শুধু সিভিক ভলান্টিয়ার নয়, কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পে চাকরি দেওয়ার নাম করে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে প্রায় এক কোটি টাকার মতো তুলেছেন গঙ্গারামপুর ব্লকের বিজেপি সভাপতি সনাতন কর্মকার বলে অভিযোগ উঠেছে। কিন্তু, চাকরির জন্য টাকা দেওয়া – কেন করলেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা? তার জবাব অনেকটাই এদিন পাওয়া গেল অভিযোগকারী দিলীপবাবুর কাছেই।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এদিন এই প্রসঙ্গে সনাতনবাবুর বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করার পরই বিজেপি কর্মী দিলীপ বর্মন বলেন, “উনি আমাদের দলের নেতা। তাই ওনাকে বিশ্বাস করে টাকা দিয়েছিলাম। কিন্তু তারপরও চাকরি হয়নি। এখন টাকা ফেরত চাইতে গেলেই আমাকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। উনি আরও অনেকের থেকেই বিভিন্ন দপ্তরে চাকরি দেওয়ার নাম করে কোটি কোটি টাকা তুলেছেন।” তবে দলীয় কর্মী তার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করলেও তা সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করেছেন সনাতন কর্মকার নিজে।

এদিন তিনি বলেন, “আসলে এটা তৃণমূলের চক্রান্ত। পুলিশ তদন্ত করুক, তাহলেই সব পরিষ্কার হয়ে যাবে।” কিন্তু যেখানে দলের কর্মী দলের নেতার বিরুদ্ধেই অভিযোগ করছে, সেখানে কি করে তৃণমূলের চক্রান্ত দেখতে পাচ্ছে বিজেপি! এদিন এই প্রসঙ্গে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা বিজেপি সভাপতি শুভেন্দু সরকার বলেন, “তৃণমূলই ষড়যন্ত্র করে আমাদের নেতাদের নামে মিথ্যা অভিযোগ করছে। আমরাও দলগতভাবে তদন্ত করব। যদি অভিযোগ প্রমাণিত হয়, তাহলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

অন্যদিকে অভিযোগের ভিত্তিতে গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমকে জানান দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার পুলিশ সুপার প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। সব মিলিয়ে এবার চাকরি দেওয়ার নাম করে বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে টাকা তোলার অভিযোগে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের বিজেপি কর্মীর। আর তার ফলেই অস্বস্তি তীব্রতর গেরুয়া শিবিরের মধ্যে। তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ জানিয়ে তারা ক্ষমতায় আসতে চাইছে, ক্ষমতায় আসার আগেই সেই ‘কাদা’ নিজেদের গায়ে লেগে যাওয়া যে মানুষ ভালোভাবে নিচ্ছেন না – তা অনেকের কথাতেই স্পষ্ট।

Top
error: Content is protected !!