এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > এবার বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে কাটমানি পোস্টারে তীব্র চাঞ্চল্য এলাকায়

এবার বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে কাটমানি পোস্টারে তীব্র চাঞ্চল্য এলাকায়

দলীয় স্তরে দুর্নীতি বন্ধ করতে লোকসভা ভোটের ফলাফল খারাপ হওয়ার পরই প্রকাশ্যে এই ব্যাপারে দলের নেতাকর্মীদের সতর্ক করে দিতে দেখা যায় খোদ তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। যার পরেই দিকে দিকে তৃণমূলের দুর্নীতিগ্রস্ত নেতা, মন্ত্রীদের অনেকের বাড়ি ঘেরাও করে টাকা ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতেও দেখা যায় সাধারণ মানুষকে। আর যার জেরে কিছুটা হলেও প্রবল অস্বস্তিতে পড়ে রাজ্যের শাসক দল।

কিন্তু শুধু তৃণমূল নয়, এবার কাটমানির জালে বিদ্ধ হতে হল রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপিকেও। সূত্রের খবর, বনগাঁ লোকসভার বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের বিরুদ্ধে এবার কাটমানির পোস্টার ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল গাইঘাটা এলাকায়। জানা যায়, গত শুক্রবার সকালে স্থানীয় মণ্ডলপাড়া হাইস্কুলের গেটে বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের বিরুদ্ধে একটি পোস্টার দেখতে পান স্থানীয়রা। এমনকী সোশ্যাল মিডিয়াতেও ওই পোস্টারের ছবি ছড়িয়ে পড়ে। তবে স্কুলের গেট থেকে অবশ্য সেই পোস্টারটি ছিঁড়ে ফেলা হয়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আর বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে কাটমানির পোস্টার পড়ায় গোটা ঘটনাটিতে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে সরব হতে শুরু করেছে তৃণমূল। এদিন এই প্রসঙ্গে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি অভিজিত্‍ বিশ্বাস বলেন, ‘ভোটের আগেই আমরা বলেছিলাম শান্তনু ঠাকুর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মিটিংয়ের জন্য দু’কোটি টাকা নিয়েছেন। সেই টাকায় দামি গাড়ি, মোবাইল ফোন, সোনা গয়না কিনেছেন। এই পোষ্টার তারই বহিঃপ্রকাশ।’

অন্যদিকে শান্তনু ঠাকুরের বিরুদ্ধে এরূপ পোস্টার পড়ায় গোটা ঘটনাটিকে তৃণমূলের চক্রান্ত বলেই কটাক্ষ করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপির দাবি, “সাংসদের স্বচ্ছ্ব ভাবমূর্তিকে কালিমালিপ্ত করতে ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা অপপ্রচার চালাতেই এই পোস্টার সাঁটানো হয়েছে। প্রমাণ থাকলে সঠিক জায়গায় অভিযোগ জানাক। নাহলে মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে কোনও লাভ হবে না।” তবে বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের বিরুদ্ধে ঠিক কে বা কারা এই পোস্টার লাগালো!

ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। তবে বাইরে থাকার কারণে এই ব্যাপারে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের। সব মিলিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিজেপি যতই কাটমানি নিয়ে অভিযোগ করুক না কেন, এবার বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে কাঠমানির পোস্টার পড়ায় তীব্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হল। যে ইস্যুতে তৃণমূলকে কোনঠেসা করতে ময়দানে নেমেছিল গেরুয়া শিবির, সেই অস্ত্রই এখন ‘ব্যুমেরাং’ হয়ে আসায় – এর পিছনে ‘ষড়যন্ত্র’ প্রমান করতে না পারলে অস্বস্তি আরও বাড়বে গেরুয়া শিবিরের বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মহল।

Top
error: Content is protected !!