এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার কলেজে হাজিরা নিয়ে কড়া পদক্ষেপের পথে সর্বভারতীয় সংস্থা, প্রতি মাসে রিপোর্ট না পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার ইঙ্গিত

এবার কলেজে হাজিরা নিয়ে কড়া পদক্ষেপের পথে সর্বভারতীয় সংস্থা, প্রতি মাসে রিপোর্ট না পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার ইঙ্গিত

প্রতিমাসে কলেজে হাজিরা নিয়ে কড়া পদক্ষেপ নিল অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল অব টেকনিক্যাল এডুকেশন (এআইসিটিই)। সম্প্রতি একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই সর্বভারতীয় সংস্থার তরফ থেকে বলা হয়েছে, প্রতি মাসে হাজিরার হিসেব অনলাইনে আপলোড না করলে বন্ধ হয়ে যেতে পারে ভাতা। চলতি মাস থেকেই এই নিয়ম কার্যকর করার জন্যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শুধুমাত্র গেট বা জিপ্যাট পরীক্ষা দিয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং, আর্কিটেকচার ও ফার্মাসিতে স্নাতকোত্তরে ভর্তি হয়েছেন যাঁরা, এটি তাঁদের জন্যই প্রযোজ্য। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতকোত্তর পড়ানো হয়, এমন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বিষয়টি পড়ুয়াদের নজরে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, আগে তিন মাস অন্তর ছাত্রছাত্রীদের হাজিরার তথ্য আপলোড করার নিয়ম ছিল। এখন সেটাই প্রতি মাসে করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, নির্ধারিত দিনে হাজিরার তথ্য আপলোড না করলে তা গ্রাহ্য হবে না। এর জেরে ভাতা বন্ধ হওয়ার প্রবল সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছে ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ করা যায়, গ্র্যাজুয়েট অ্যাপটিটিউড টেস্ট ইন ইঞ্জিনিয়ারিং বা গেট পরীক্ষায় উর্ত্তীণ হলে স্নাতকোত্তর স্তরে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ভর্তি হওয়া যায়। একইভাবে, ফার্মাসিতে স্নাতকোত্তর স্তরে ভর্তি হতে গেলে, গ্র্যাজুয়েট ফার্মাসি অ্যাপটিটিউড টেস্ট বা জিপ্যাট উত্তীর্ণ হতে হয়। এই পড়ুয়াদের বিশেষ ভাতা দেয় কেন্দ্রীয় সরকার।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সম্প্রতি, এআইসিটিই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানিয়েছে, প্রতি মাসে এই ছাত্রছাত্রীদের ১২ হাজার ৪০০ টাকা করে ভাতা দেওয়া হবে। কিন্তু তার জন্যে ছাত্রছাত্রীদের হাজিরার ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। প্রতি মাসে কত শতাংশ হাজিরা থাকতে হবে সে ব্যাপারে কোনো নির্দিষ্ট উল্লেখ না থাকলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রত্যেক মাসে হাজিরার তথ্য এআইসিটিই’-র পোর্টালে আপলোড করতে হবে।

এই নির্দেশ পাওয়া মাত্রই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়, পড়ুয়াদের বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে জানানো হয়েছে, প্রতি মাসে ৯ তারিখের মধ্যে আগের মাসের হাজিরার তথ্য আপলোড করতে হবে। এজন্য ছাত্রছাত্রীদের, মাসের পাঁচ তারিখের মধ্যে হাজিরার ফর্ম বিভাগীয় প্রধানদের দিয়ে সই করিয়ে তা স্কলারশিপ বিভাগে জমা করতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই ফর্ম পরীক্ষা করার পর, আপলোড করে দেওয়া হবে।

তবে, কোনো কারণে হাজিরা আপলোড না করার ফলে ভাতা বন্ধ হলেও, সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থী পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারবেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অবশ্য স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, ছাত্রছাত্রীদের ভাতা বন্ধ হলে তার দায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নয়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!