এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > BREAKING NEWS – কর্ণাটক বিধানসভায় সরকারের শক্তিপরীক্ষা নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত, জানুন বিস্তারিত

BREAKING NEWS – কর্ণাটক বিধানসভায় সরকারের শক্তিপরীক্ষা নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত, জানুন বিস্তারিত



জমজমাট কর্ণাটকের রাজনীতি – বিধায়কদের পদত্যাগ থেকে সুপ্রিম কোর্টের মামলা, কোনো মশলারই কমতি নেই দক্ষিণের এই রাজ্যে। গত ১৫ দিন ধরে সেই নাটক আরও জমেছে – এরপর গতকাল সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর, সকলেই ভেবেছিলেন আজই হবে সাসপেন্সের অবসান। কিন্তু, বাস্তবে সেই সাসপেন্স আরও গেল বেড়ে।

আমরা আগেই এক প্রতিবেদনে কর্ণাটক বিধানসভার বর্তমান অঙ্ক তুলে ধরে জানিয়েছিলাম, বর্তমানে কর্ণাটকের ভাগ্য দাঁড়িয়ে আছে মাত্র ১ ভোটের উপরে। কংগ্রেস শিবির মরিয়া তাদের ‘অসুস্থ’ বিধায়ক শ্ৰীমন্ত পাতিলকে আস্থা ভোটে যে কোন মূল্যে হাজির করাতে। অন্যদিকে, বিজেপি চায় আর সময় না দিয়ে আজকেই কুমারস্বামী সরকারের সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রমান নিতে।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিকে, এর মাঝেই বিজেপির চার বিধায়কের এক প্রতিনিধিদল রাজ্যপাল বজুভাই বলার সঙ্গে দেখা করে এক স্মারকলিপি দিয়ে আসেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যপাল জানিয়ে দেন, আজ মধ্যরাত পেরিয়ে গেলেও, আজই করতে হবে সরকারের শক্তি পরীক্ষা। যা নিয়ে শুরু হয় বিতর্ক – কগ্রেস বিধায়ক এইচকে পাতিল প্রশ্ন তোলেন, বিধানসভায় কিভাবে কাজ হবে তা নিয়ে রাজ্যপাল হস্তক্ষেপ করতে পারেন না – এটা সংবিধান বিরুদ্ধ।

এরপরেই, সরকার ও বিরোধী পক্ষের হট্টগোলে ১০ মিনিটের জন্য বিধানসভার অধিবেশন স্থগিত করে দেওয়া হয়। এরপরে যখন বিজেপি শক্তিপরীক্ষার জন্য তৈরী হচ্ছে, তখনই রাজ্যপালের কথাকে অমান্য করে স্পিকার আজকের মত অধিবেশন মুলতুবি করে দেন। তিনি জানিয়ে দেন আগামীকাল সকাল ১১ টায় আবার অধিবেশন শুরু হবে। যা নিয়ে তীব্রভাবে ক্ষুব্ধ বিজেপি শিবির।

বিজেপি শিবিরের শীর্ষনেতা ইয়েদুরাপ্পা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি তাঁর দলীয় বিধায়কদের নিয়ে বিধানসভাতেই থাকবেন। যতক্ষন পর্যন্ত না মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী শক্তিপরীক্ষা দিচ্ছেন, তাঁরা সদন ছাড়বেন না। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, বিধানসভার স্পিকারের এই পদক্ষেপে আপাতত আজকের রাতটা সময় পেলেন কংগ্রেস-জেডিএস জোটের নেতারা। তাঁরা যদি কোনোরকমে শ্ৰীমন্ত পাতিলকে ফিরিয়ে আনতে পারেন তাহলেই কিন্তু এই যাত্রায় টিকে যাবে জোট সরকার। শেষপর্যন্ত কি হয় দক্ষিণের এই রাজ্যে সেদিকেই আপাতত নজর সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!