এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মোদী সরকারের ‘জনমোহিনী বাজেট’ কি এই নতুন ‘খোঁচায়’ এবার জলে যাবে? প্রশ্ন রাজনৈতিক মহলে

মোদী সরকারের ‘জনমোহিনী বাজেট’ কি এই নতুন ‘খোঁচায়’ এবার জলে যাবে? প্রশ্ন রাজনৈতিক মহলে

নির্বাচন আসলেই বিজেপি রামকে ব্যবহার করে বলে বিভিন্ন সময়ে বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ থাকতে দেখা গেছে দেশের বিরোধী দলগুলোকে। গত ২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে ক্ষমতায় এলে অযোধ্যায় রাম মন্দির গড়ে তোলা হবে। কিন্তু দেখতে দেখতে পাঁচটি বছর সময় কেটে গেলেও এখনও পর্যন্ত সেই মন্দির গঠনের কাজ সম্পন্ন হয়নি। উল্টে রাম মন্দিরের সমস্ত ইস্যু আদালতের দরজায় আটকে রয়েছে। যা নিয়ে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ই ক্ষোভ উগরে দিতে দেখা গেছে বিভিন্ন হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলোকে।

তবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁর অবস্থান থেকে একচুলও না নড়ে বারে বারেই এই ইস্যুতে বলেছেন, “শীর্ষ আদালত রায় না দিলে সরকার এই ব্যাপারে আগবাড়িয়ে কোনো অর্ডিন্যান্স জারি করবে না”। কিন্তু সময় তো কারও জন্য থেমে থাকে না। যে বিজেপি ক্ষমতায় আসার আগে রাম মন্দির করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, দেখতে দেখতে নির্বাচনের ঘন্টা বেজে গেলেও সেই রাম মন্দির নিয়ে কোনো আশা শোনা না যাওয়ায় এবার সেই বিজেপির বিরুদ্ধেই সরব হতে দেখা গেল আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবতকে। সূত্রের খবর, শুক্রবার প্রয়াগরাজে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ধর্ম সংসদে বক্তব্য পেশ করতে গিয়ে মোহন ভাগবত বলেন, “ওরা ভোটের জন্যই রাম মন্দির নিয়ে কথা বলে। আর ভোট ফুরোলেই সব ভুলে যায়”!

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তিনি আরও বলেন, “কিন্তু আমরা রাম মন্দির বিশ্বাস ও ভালোবাসা থেকেই তৈরি করতে চাই। সরকার যদি নির্মাণের সিদ্ধান্ত না দেয় তবে আগামী তিন থেকে চার মাসের মধ্যে আমরা রাম মন্দির তৈরির কাজ শুরু করে দেব”। এদিকে মোহন ভাগবতের এহেন মন্তব্যের তীব্র উত্তেজনা ছড়ায় সভায় আগত শ্রোতাদের মধ্যে। বিজেপি রাম মন্দিরের কথা বললেও ঠিক কবে রাম মন্দির তৈরি হবে তা নিয়ে মোহন ভাগবতের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন তাঁরা। আর তখনই আরএসএস প্রধান বলেন, “চার মাস পরেই মন্দির তৈরীর দিন ঘোষণা হবে এবং মন্দির তৈরীর কাজ শুরু করা হবে”।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের প্রশ্ন, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে এবার রাম মন্দিরের প্রতিশ্রুতি পালন না করায় বিজেপির বিরুদ্ধে তাহলে কি মাঠে নামতে দেখা যাবে আরএসএসকেও? আর যদি এই জল্পনা তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে ওঠে তাহলে যে লোকসভা নির্বাচনের আগে বড়সড় অস্বস্তিতে পড়তে হবে গেরুয়া শিবিরকে তা নিঃসন্দেহে বলাই যায় বলে ধারণা রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। সবমিলিয়ে, সমস্ত বিরোধীদের এক ছাতার তলায় আসার প্রক্রিয়াকে থমকে দিতে মোদী-সরকারের জনমোহিনী বাজেটের সুবিধা কি এবার রামমন্দির বিতর্কে জলে যাবে? এই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে রাজনৈতিক মহলে!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!