এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > উপকৃত হতে পারেন কয়েক লক্ষ পেনশন গ্রাহক, নতুন ঘোষণার পথে কেন্দ্র

উপকৃত হতে পারেন কয়েক লক্ষ পেনশন গ্রাহক, নতুন ঘোষণার পথে কেন্দ্র

লোকসভা ভোটের আগেই হাসি ফুটতে চলেছে সরকারি এবং বেসরকারি ক্ষেত্রে কাজ করা কয়েক লক্ষ পেনশন গ্রাহকদের। ২০১৪ সালের ১ লা সেপ্টেম্বরের পরে অবসর নিলেও পুরো বেতনের উপর ইপিএফ পেনশন নেওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন সরকারি এবং বেসরকারি ক্ষেত্রের কর্মচারীরা। সেরকমই সম্ভাবনার কথা জানা গিয়েছে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রক সূত্র থেকে। কেন্দ্রীয় সরকারের এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে উপকৃত হতে পারেন কয়েকলক্ষ পেনশন গ্রাহকরা, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

এমনিতেই কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ডের (ইপিএফ) আওতাভুক্ত পেনশন প্রাপকদের মাসিক ন্যূনতম পেনশনের পরিমাণ এক হাজার টাকা থেকে বাড়ানো নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই টালবাহানার অভিযোগ উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে। তার উপর রাজস্থান, ছত্তিশগড়, তেলেঙ্গনা, মধ্যপ্রদেশ এবং মিজোরামের বিধানসভা ভোট আসন্ন। তাই এই মুহূর্তে বিধানসভা ভোট নিয়ে ব্যস্ততার অজুহাত দেখিয়ে অছি পরিষদের বৈঠক ডাকা নিয়েি টালবাহানা শুরু করেছে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রকের অন্তর্ভুক্ত কর্মচারী ভবিষ্যনিধি সংগঠন (ইপিএফও)। তবে এটাও ঠিক যে, সর্বোচ্চ বেতনের উপর পেনশন পাওয়ার পরিকল্পনাটির রূপায়ন হলে সামগ্রিকভাবেই এই পেনশনের পরিমানটা বেড়ে যাবে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না – তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে এই নিয়ে গভীর অনিশ্চয়তা রয়েছে এখনো। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না নেওয়া হলে এ ব্যাপারে কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে সম্প্রতি সমস্ত আঞ্চলিক কার্যালয়ে চিঠি দিয়ে বেশি ইপিএফ পেনশন প্রাপকদের বকেয়া টাকা মিটিয়ে মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছিল ইপিএফ বলে জানা গেছে। কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রক সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, সর্বোচ্চ ১৫ হাজার টাকা মাসিক বেতন পান যেসব সংস্থা বা প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীরা তাঁরাই বাধ্যতামূলক সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচী ইপিএফের আওতায় থাকেন বর্তমানে। তবে এক্ষেত্রে ওই সংস্থার ন্যূনতম কর্মীসংখ্যা ২০ জন হওয়া বাঞ্ছনীয়।

ইপিএফের অধীনস্থ একজন কর্মী তাঁর মূল বেতন (বেসিক স্যালারি) এবং মহার্ঘ ভাতার (ডিএ) ১২ শতাংশ অর্থ ইপিএফে পেয়ে থাকেন। ওই কর্মীর হয়ে তাঁর সংস্থা কর্তৃপক্ষ কন্ট্রিবিউট করেন আরও ১২ শতাংশ অর্থ। এই ১২ শতাংশ কন্ট্রিবিউশনের ৩.৬৭% যায় আওতাভুক্ত কর্মচারীর ইপিএফ খাতে। বাকি ৮.৩৩% অর্থ যায় তাঁর ইপিএস (এমপ্লয়মেন্ট পেনশন স্কিম) অ্যাকাউন্টে। পদোন্নতি বা অন্য কোনও কারণে যদি মাসিক বেতনের পরিমাণ ১৫ হাজার টাকা থেকে বেড়ে বেশি হয় এবং তারপরেও যদি সেই কর্মী ইপিএফের আওতায় থাকতে চান, তাহলে ওই ১৫ হাজার টাকার উপর ভিত্তি তাঁর ইপিএফ পেনশন খাতে ৮.৩৩% অর্থ কাটা হবে। তাঁর বর্ধিত পুরো বেতনের উপর সংশ্লিষ্ট কর্মী ইপিএফ পেনশন পাবেন না। এই নিয়মেই পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৪ সালের আগে ইপিএফের অবসরপ্রাপ্ত গ্রাহকরা তাঁদের সম্পূর্ণ বেতনের উপরই পেনশন নেওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন। এই নিয়ে দায়ের হওয়া একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে এমনটাই জানিয়েছিল আদালত। সেই আবেদন যাচাই করি সংশ্লিষ্ট সংস্থা কর্তৃপক্ষ উপযুক্ত ব্যবস্থা নিত। তারপর ২০১৪ সালের ১ লা সেপ্টেম্বরের পর যেসব ইপিএফ গ্রাহকরা অবসর নিয়েছেন তাঁদের আগের মতোই পুরো বেতনের উপর পেনশন নেওয়ার আবেদন করতে পারার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তবে আগামীদিনে আদৌ এই সম্ভাবনার বাস্তবায়ন হবে কিনা সম্পূর্ণই নির্ভর করেছে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের উপর।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!